দেবযানী সরকার, কলকাতা: রহস্যজনকভাবে মারা গিয়েছেন বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুত। রবিবার সকালে মুম্বইয়ের বান্দ্রার বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় তাঁর দেহ। পুলিশের দাবি, গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় তাঁকে। তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলেই প্রাথমিক ভাবে অনুমান পুলিশের।

শোনা যাচ্ছে, গত ছয়মাস ধরে ক্লিনিক্যাল ডিপ্রেশন ছিলেন সুশান্ত। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করলেন টলিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। শ্রীলেখার কথায়, “সুশান্তের খবরটা জানার পর থেকে খুব কষ্ট হচ্ছে। সত্যি খুব কষ্ট হচ্ছে। বারবার নিজের মনটাকে অন্যদিকে ঘোরানোর চেষ্টা করছি। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকছি। কারণ ওর হাসি মুখের ছবিটা দেখলেই মনটা খারাপ হয়ে যাচ্ছে।”

শ্রীলেখা বলেন, “আমার মনে হয়, কোনও একটা মাত্র কারণের জন্য কেউ এরকম একটা কাজ করে না। এর পেছনে অনেক কারণ থাকে। যদিও এখনও পোস্ট মর্টেমের রিপোর্টটা পাওয়া যায়নি। তবে ডিপ্রেশন এখন মর্ডান লিভিং-এর একটা পার্ট হয়ে গেছে। আমরা ছোটবেলায় জানতাম না ডিপ্রেশন খায় না গায়ে মাখে।

এই যৌথ পরিবার থেকে নিউক্লিয়ার ফ্যামিলিতে একা থাকার ইচ্ছে, কিংবা এই ভার্চুয়াল দুনিয়ার মধ্যে থাকা, এই সবকিছুই ডিপ্রেশনের একটা কারণ। একটা স্মল টাউন ছেলে বোম্বেতে এসে ছিল, আমরা তো সবসময় লোকের বাইরেটা দেখি, তাই ভিতরে কি চলছে বুঝতে পারি না। সফল-বিফল কোনও ব্যাপারই না। যতই টাকা পয়সা, নাম-যশ থাকুক না কেন মানসিক কষ্টটা কোনও কিছু দিয়েই দূর করা যায় না। তাই এখন মানুষের কথা বলার লোকের খুব প্রয়োজন।

কথা বলার লোকের এখন খুব অভাব। সবাই এখন আমরা ভার্চুয়াল দুনিয়ায় কথা বলি। তাই কে সত্যি বলছে, কে মিথ্যে বলছে বোঝাটা খুব কঠিন। তাই সামনাসামনি বসে কথা বলার মত বন্ধু আমাদের খুব দরকার। আমাদের এখন সবাইকে আরও একটু বেশি সহমর্মী হতে হবে।”

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ