নয়াদিল্লি: তিনি সমলিঙ্গ সম্পর্কে রয়েছেন। রবিবার জানালেন দেশের দ্রুততমা দ্যুতি চাঁদ। স্বভাবতই দ্যুতির সাহসী স্বীকারোক্তিতে আলোড়ন দেশের অ্যাথলেটিক্স মহলে। তাঁর লিঙ্গের প্রমাণ হিসেবে মামলা চলেছে দীর্ঘদিন৷ গত বছর কোর্ট অফ আর্ব্রিট্রেশন ফর স্পোর্টসে সেই মামলা জেতেন দ্যুতি। সেই মামলা জয়ের পর এবার ব্যক্তিগত জীবনেও সমলিঙ্গ সম্পর্ক নিয়ে লড়াই চালাচ্ছেন এই স্প্রিন্টার। কারণ এই সম্পর্কে পরিবারকে পাশে পাচ্ছেন না দ্যুতি।

১০০ মিটারে জাতীয় রেকর্ড ধারক, ২০১৮ জাকার্তা এশিয়াডে জোড়া সোনাজয়ী দ্যুতি চাঁদ রবিবার জানান, ওড়িশায় তাঁর হোমটাউন চাকা গোপালপুরেরই স্থানীয় সমলিঙ্গের একজনের সঙ্গে সম্পর্কে রয়েছেন তিনি। তবে প্রচারের আড়ালে রাখতে সঙ্গিনীর নাম প্রকাশ্যে আনতে চাননি তিনি। কিন্তু এমন একটি সম্পর্ক নিয়ে কোনওরকম রাখঢাক রাখতে চান না দ্যুতি।

আরও পড়ুন: রিজার্ভ ক্রিকেটার হিসেবে বিশ্বকাপর জন্য ডাক পেলেন ব্র্যাভো, পোলার্ড

সানডে এক্সপ্রেসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এপ্রসঙ্গে দেশের সেরা মহিলা দৌড়বিদ জানান, ‘আমি আমার সোলমেটকে খুঁজে পেয়েছি। আমি মনে করি প্রত্যেকেরই তাঁর পছন্দের মানুষের সঙ্গে সম্পর্কে থাকার স্বাধীনতা রয়েছে। সমলিঙ্গের সম্পর্ককে আমি সবসময় সমর্থন জানিয়ে এসেছি। এটা মানুষের ব্যক্তিগত পছন্দ। আপাতত বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ ও অলিম্পিক নিয়ে ভাবছি। তবে ভবিষ্যতে এই সম্পর্ককে পরিণতি দিতে চাই।’

আরও পড়ুন: ১১৬ বছরের রেকর্ড ছুঁয়ে প্রথম ক্লাব হিসেবে ত্রিমুকুট জয় ম্যান সিটির

২০১৮ এশিয়াডে মহিলাদের ১০০ মিটার ও ২০০ মিটার ইভেন্টে রুপো জেতেন দ্যুতি চাঁদ। ২০ বছর পর দ্যুতির হাত ধরে এশিয়াডে মহিলাদের ১০০ মিটার ইভেন্টে পদক আসে ভারতের। অন্যদিকে মহিলাদের ২০০ মিটার ইভেন্টে ১৬ বছর পর দেশকে পদক এনে দেন ওড়িশার এই অ্যাথলিট। বর্তমানে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের প্রস্তুতিতে মগ্ন দ্যুতি। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চ থেকেই ২০২০ টোকিও অলিম্পিকের মহড়া সারবেন তিনি।

আরও পড়ুন: পয়সার জন্য কী-ই না করে, কোহলিকে ‘বিরাট’ খোঁচা অজির

তাঁর কেরিয়ারের পাশাপাশি সম্পর্ক নিয়ে বলতে গিয়ে দ্যুতি জানান, ‘আমি চাইতাম একজন অ্যাথলিট হিসেবে কেউ আমায় সবসময় উদ্বুদ্ধ করুক। গত ১০ বছর ধরে আমি একজন স্প্রিন্টার হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করে তোলার চেষ্টায় রয়েছি। আরও ৫-৭ বছর আমি দেশের নাম উজ্জ্বল করতে চাই। বিশ্বেও বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সময় আমাকে ঘুরে বেড়াতে হয়। একটা সম্পর্কে এটা খুব একটা সহজ ব্যাপার নয়।’