কলকাতা: প্রাথমিক স্কুলে বাধ্যতামূলক হচ্ছে খেলা৷ প্রি-প্রাইমারি থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত খেলা বাধ্যতামূলক৷ ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকেই এই নিয়ম কার্যকরী হবে৷ ইতিমধ্যে এই সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, নতুন বছরের জানুয়ারি থেকে প্রাথমিক স্কুলে বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে খেলা৷ এই মর্মে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে৷ ২০২০ সালের নতুন শিক্ষাবর্ষ থেকে এই নিয়ম কার্যকরী হবে৷ এরজন্য আলাদা একটি ক্লাসের ব্যবস্থা করা হবে৷ মিড ডে মিলের আগেই এই ক্লাসটি হবে৷ তারজন্য আলাদা একজন একজন শিক্ষকও থাকবে৷

প্রথম ধাপে প্রি-প্রাইমারি থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে খেলা৷ এরপর ধাপে ধাপে পরবর্তী ক্লাসে খেলার ক্লাস চালু করা হবে৷ এতে ছাত্রছাত্রীরা স্বাস্থ্য ও শরীরচর্চা সম্পর্কে সচেতন হবে৷ বর্তমানে অনেক স্কুলে পিটির শিক্ষক রয়েছে৷

এর আগে পড়ুয়াদের জন্য কম্পিউটার বাধ্যতামূলক করার কথা বলেছে রাজ্য শিক্ষা দফতর৷ প্রাথমিকভাবে পঞ্চম শ্রেণীতে কম্পিউটার পড়ানো হবে৷ নতুন বছরের জানুয়ারি মাস থেকেই চালু করা হবে কম্পিউটার৷ পড়ানো হবে রাজ্যের ১২ হাজার স্কুলে পড়ুয়াদের৷

তবে এর জন্য নতুন কোনও শিক্ষক নিয়োগ করবে না স্কুল শিক্ষা দফতর৷ প্রথম বছর পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে কম্পিউটার চলবে৷ সফল হলে পরবর্তীকালে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ানো হবে কম্পিউটার৷ রাজ্যের ৬৬ হাজার স্কুলের মধ্যে ১২ হাজার স্কুলকে নেওয়া হয়েছে। এই স্কুলগুলিতে আইসিটি প্রজেক্টের অধীনে কম্পিউটার পাঠানো হয়েছে।

কম্পিউটার পড়ুয়াদের জন্য নয়া কম্পিউটার এর পাশাপাশি কম্পিউটার বই ছাপা হয়েছে।মূলত কম্পিউটার সম্পর্কে প্রাথমিক ধারণা, কম্পিউটারের ভাষা কী তা বোঝানো৷ এবং কীভাবে কম্পিউটার চালাতে হয় তার সম্পর্কে একটি ধারনা দেওয়া হয়েছে বইতে। এরই সঙ্গে ইন্টারনেট কী সে সম্পর্কেও সাময়িক ধারণা দেওয়া হয়েছে নতুন কম্পিউটার বইতে।

যদিও রাজ্য সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মাধ্যমিক স্তরে কম্পিউটার বাধ্যতামূলক ভাবে পড়ানোর জন্য। যাতে অন্যান্য বোর্ডের পড়ুয়াদের সঙ্গে একটা জায়গায় প্রতিযোগিতা দিতে পারে। বর্তমানে মাধ্যমিক স্তরে কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশন ঐচ্ছিক বিষয় হিসেবেই নেওয়া যায়৷ তবে রাজ্যের অনেক স্কুলেই প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো এবং ইন্টারনেট সংযোগ না থাকায়,এই মুহূর্তে সব স্কুলে কম্পিউটার পড়ানো যাচ্ছে না৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ