কলকাতা: ঐতিহাসিক পিঙ্ক বল টেস্টের প্রথম দিনে অনন্য মুহূর্তের সাক্ষী রইল ইডেন। বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হেলমেটে চোট পাওয়ার পর  সবার এগিয়ে মাঠে দৌড়লেন ভারতীয় দলের ফিজিও নীতিন প্যাটেল৷

ভারতের মাটিতে প্রথম দিন-রাতের টেস্টে ইডেনে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় পেসারদের সামনে শুরু থেকেই অস্বচ্ছন্দ দেখাচ্ছিল ‘টাইগার’দের। বাংলাদেশ ইনিংসের ২২.১ ওভারে ভারতীয় পেসার মহম্মদ শামির বিষাক্ত বাউন্সার আছড়ে পড়ে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান নঈম হাসানের হেলমেটে।

অভিঘাতে ক্রিজেই লুটিয়ে পড়েন নঈম। তিনি মাটিতে পড়ে যেতেই তাঁকে দেখতে ছুটে যান ভারতীয় খেলোয়াড়রা। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি দ্রুত ডেকে পাঠান ভারতীয় ফিজিও নীতিন প্যাটেলকে। তিনিই সবার আগে নইমের প্রাথমিক চিকিৎসা শুরু করেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে হাজির হন বাংলাদেশের ফিজিও।

চিকিৎসায় কিছুটা ধাতস্থ হয়ে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন নঈম। কিন্তু, ১৯ রানে ইশান্ত শর্মার বলে ড্রেসিংরুমে ফিরে যান তিনি। আহত নইমের চিকিৎসার জন্য ভারতীয় শিবিরের তরফ থেকে যেভাবে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। দিন-রাতের টেস্টের প্রথম দিনে বাইশ গজে এই ‘স্পোর্টসম্যান স্পিরিট’-এর সাক্ষী থাকল ক্রিকেটের নন্দনকানন৷

আউট হয়ে যাওয়ার পর আর মাঠে নামেননি নঈম। বাংলাদেশের ইনিংস শেষে জানানো হয় নঈমের পরিবর্তে খেলবেন তাইজুল ইসলাম। নঈম হাসান চোট পাওয়ার আগেই অর্থাৎ বাংলাদেশি ইনিংসের ২০.৩ ওভারে সেই শামির বলেই মাথায় আঘাত পেয়ে মাঠে ছাড়েন লিটন দাস। আঘাত পেয়েও ক্রিজেই ছিলেন তিনি। ইশান্ত শর্মার ওভারে অস্বস্তি বোধ করায় অবসৃত হন৷

পরেই ‘কনকাশন সাব’ হিসাবে লিটনের পরিবর্তে ব্যাট করতে নামেন মেহেদি হাসানক। লিটন ছিটকে যাওয়ায় বড় সমস্যায় পড়ে বাংলাদেশ। ভারতীয় পেসারদের বিরুদ্ধে তাঁকেই সাবলীল দেখাচ্ছিল। সেই লিটন না-থাকায় দ্বিতীয় ইনিংসে আরও সমস্যায় পড়তে হবে বাংলাদেশকে। ম্যাচের বাকি দিনে মেহেদি শুধু ব্যাটিং ও ফিল্ডিং করতে পারবেন মেহেদি। বল করতে পারবেন না তিনি৷ কারণ উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান লিটনের পরিবর্ত হিসেবে খেলেন মেহেদি।

তবে এই সবের মাঝেও ঐতিহাসিক টেস্টের প্রথম দিনে ভারতের তরফ থেকে আহত নঈমকে পরিচর্যার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসিত হয়েছেন ভারত অধিনায়ক কোহলি। সবাই বলছেন, ‘এটাই তো ক্রিকেটীয় স্পিরিট।’ ক্রিকেট যুদ্ধে বহুবারই বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়েছেন ভারত-বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। কিন্তু, শুক্রবারের ইডেন গার্ডেনস সাক্ষী রইল অন্যরকম মুহূর্তের।