তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: শারদোৎসবের দিনগুলিতে বাঁকুড়া শহরে যানজট এড়াতে বিশেষ উদ্যোগ নিল প্রশাসন৷ শহরের ব্যস্ততম এলাকাগুলিতে যানবাহন নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি কয়েকটি এলাকাকে ‘নো পার্কিং জোন’ ঘোষণা যেমন করা হয়েছে, তেমনই শহরের মধ্যে কয়েকটি অস্থায়ী ‘পার্কিং জোন’ তৈরি করা হয়েছে৷ এর ফলে আসন্ন শারদোৎসবে শহরে যানজট অনেকটাই কম হবে বলে অনেকে মনে করছেন৷

বাঁকুড়া পুরসভার উপ-পুরপ্রধান দিলীপ আগরওয়াল জানিয়েছেন, শহরের অন্যতম ব্যস্ত এলাকা মাচানতলা থেকে রানিগঞ্জ মোড় এই এলাকাতে প্রচুর বড় বড় দোকান, শো রুম থাকাতে প্রচুর ভিড় হয়৷ তাই, রাস্তার পাশেই বাইক আরোহীরা তাদের মোটর বাইক দাঁড় করাতে বাধ্য হন৷ ফলে, সাধারণ মানুষের যাতায়াতের ভীষণ সমস্যা হয়৷ এই খবর নব নিযুক্ত জেলা পুলিশ সুপারের কাছে পৌঁছতেই তিনি নিজে ওই সব এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

তিনি আরও জানান, নব নিযুক্ত জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশেই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পুরসভা, ব্যবসায়ী সমিতি সহ সংশ্লিষ্ট সকলের সঙ্গে বসে আলোচনা হয়েছে। আপাতত ঠিক হয়েছে, মোটর বাইক পার্কিং-এর জন্য তিনটি ‘জোন’ তৈরি করা হয়েছে। হেড পোস্ট অফিসের কাছে ডিষ্ট্রিক্ট সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাংকের পাশে, বঙ্গ বিদ্যালয়ের মাঠের কিছুটা অংশ ও পুরসভা সংলগ্ন বিএসএনএল অফিসের পাঁচিলের পাশে ফাঁকা অংশ ‘পার্কিং জোন’ হিসেবে আপাতত ব্যবহার করা হবে বলে তিনি জানান।

একই সঙ্গে তিনি আরও জানান, মাচানতলা থেকে লালবাজার এই রাস্তা সন্ধ্যে পাঁচটা থেকে রাত দশটা দু’চাকা ও চার চাকার গাড়ি চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যদি কেউ যেতে চান তবে তাদের পোদ্দার পাড়া ট্রাফিক অফিসের পাশের বিকল্প রাস্তা ব্যবহার করতে হবে। প্রশাসনিক এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন শহরবাসী৷ এই সিদ্ধান্তের ফলে শারদোৎসবের দিন গুলিতে নিশ্চিন্ত আর নিরাপদে, যানজট এড়িয়ে বাঁকুড়া শহরে প্রতিমা দর্শন করতে পারবেন বলেই অনেকে মনে করছেন৷