ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: গরীব ও দু:স্থ ছাত্র ছাত্রীদের জন্য প্রশিক্ষণ শিবিরের আয়োজন করল বেসরকারি সংস্থা৷ মাধ্যমিক স্তর থেকেই ছাত্র ছাত্রীদের বায়োলজির ভয় দূর করতে এবং এই বিষয়ে কিভাবে অনেক বেশী নম্বর তোলা যায়, প্রশিক্ষণ শিবিরে তাই আলোচনা চলবে৷

সংস্থার কর্ণধার প্রীতম সাঁই সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন ধরে তাঁরা লক্ষ্য করছেন অনেক ছাত্রছাত্রীর মধ্যে বায়োলজি নিয়ে অহেতুক একটি ভীতি কাজ করে। কিন্তু বিষয়টিকে আয়ত্ত্ব করতে পারলে এই বায়োলজিতেই কত ভাল নম্বর পাওয়া যায় তারই টিপস তাঁরা এবার দিতে চলেছেন ২০২০ সালে যাঁরা মাধ্যমিক দেবেন তাঁদের নিয়ে।

আরও পড়ুন : উনি যতই গালাগালি দেন, মনে হয় ওনাকে আলিঙ্গন করি: রাহুল

প্রথম ধাপে তাঁরা ৫০ জন ছাত্রছাত্রীকে এই নিখরচায় সুবিধা দিতে চলেছেন। তবে সাড়া পেলে তা আরও বাড়ানো হতে পারে। এছাড়াও তাঁদের পরীক্ষা হলের ভীতি দূর করতে মক টেষ্টও নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, প্রীতম সাঁই এবছর থেকেই পূর্ব বর্ধমান জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্বপ্ন উড়ান প্রকল্পে বায়োলজি পড়ানোর দায়িত্ব পেয়েছেন। চলতি বছরেই তাঁর কাছ থেকে ৯জন ছাত্রছাত্রী সর্বভারতীয় ডাক্তারী পরীক্ষায় রীতিমত কৃতিত্ব অর্জনও করেছেন।

ভাতারের বাসিন্দা সম্পদ মাঝি নামে এক ছাত্র রীতিমত নজর কেড়েছে গোটা জেলার। সম্পদের বাবা ও মা ক্ষেতমজুরের কাজ করেন। সেই ছাত্রই বর্তমানে বর্ধমান মেডিকেল কলেজে ডাক্তারী পড়ছেন। প্রীতমবাবু জানিয়েছেন, আগামী ২৬ জানুয়ারী এই ৯জন কৃতিছাত্রছাত্রীকেই সম্বর্ধনা দেওয়া হবে। হাজির থাকবেন জেলাশাসক অনুরাগ শ্রীবাস্তবও।