স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আপনি চিঠিতে যা করতে বলেছেন তা অভূতপূর্ব। এই ভাষাতেই রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের চিঠির কড়া জবাব দিলেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দোপাধ্যায়।

মঙ্গলবার অধ্যক্ষকে চিঠি লিখেছিলেন রাজ্যপাল। সেই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতেই এবার পাল্টা জবাবি চিঠিতে অধ্যক্ষ লিখেছেন, “আপনি চিঠিতে যা করতে বলেছেন তা অভূতপূর্ব। দৃষ্টান্তমূলক। চিঠি আমার কাছে আসার আগেই তা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পেয়েছে। এটা কাম্য নয়। আপনার চিঠি পাওয়ার আগেই অধিবেশন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।”

এসসি-এসটি বিল নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্য সরকার ও রাজভবনের সংঘাত চলছে। তিনটি বিল রাজভবন অনুমোদন দেয়নি বলে ৩ ডিসেম্বর অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দেন, ৪ ও ৫ ডিসেম্বর বিধানসভার অধিবেশন স্থগিত থাকবে।

বিধানসভার অধিবেশনেই অধ্যক্ষ জানিয়ে দেন, সরকারের তরফে তিনটি বিল রাজ্যপালের অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু একটিতেও অনুমোদন দেয়নি রাজভবন। ফাইলগুলি সেখানেই পড়ে রয়েছে।

সরকার পক্ষের এই বক্তব্য শোনার পরই স্পিকারকে চিঠি দেন রাজ্যপাল। তিনি অধ্যক্ষকে বলেছিলেন বিল নিয়ে তাঁর সঙ্গে যে চিঠির লেনদেন হয়েছে তা যেন বিধানসভাকে জানান অধ্যক্ষ।

এরপরই পরিষদীয় মন্ত্রী তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় প্রশ্ন তোলেন, দুই ব্যক্তির মধ্যে আদানপ্রদান করা চিঠি কেন জনসমক্ষে আসবে? তিনি অভিযোগ করেন, পদ্ধতি বিলম্বিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এদিন বিধানসভার স্পিকার ও চিঠির জবাবে বুঝিয়ে দিলেন রাজ্যপালের আচরণে তাঁরা ভীষণই ক্ষুব্ধ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও