মাদ্রিদ: করোনা পরীক্ষার পর ব্যক্তিগত অনুশীলনের মধ্যে দিয়ে চলতি মাসের শুরু থেকেই প্রস্তুতিটা শুরু হয়ে গিয়েছিল। অবেশেষে বেশ কয়েক সপ্তাহের জল্পনার পর করোনা পরবর্তী সময় স্পেনের প্রিমিয়র ডিভিশন ফুটবল চালু করার নির্দিষ্ট দিনক্ষণ ঘোষণা করল স্পেনের সরকার। আগামী ৮ জুন থেকে পুনরায় চালু করা যেতে পারে লা-লিগা। শনিবার স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো স্যাঞ্চেজ।

তবে প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দিলেও করোনা পরবর্তী সময় প্রথম লা-লিগার ম্যাচ কবে অনুষ্ঠিত হবে, সেবিষয়ে কর্তৃপক্ষ এখনও চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত জানায়নি। প্রাথমিক ভাবে ১২ জুন থেকে লিগ পুনরায় শুরু করার ব্যাপারে আশাবাদী ছিল লা-লিগা কর্তৃপক্ষ। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণার পর এখন তাঁরা কী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে এখন সেটাই দেখার। তবে খেলা শুরু হলে তা সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য নিরাপত্তার মধ্যে দিয়েই শুরু হবে বলে জানিয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী। সেক্ষেত্রে বুন্দেসলিগার পদাঙ্ক অনুসরণ করে লা-লিগাও যে ফাঁকা গ্যালারিতেই শুরু হতে চলেছে, তা একপ্রকার নিশ্চিত।

লিগ শুরুর পর স্বাস্থ্য সংক্রান্ত নিরাপত্তার নির্দিষ্ট গাইডলাইনও খুব শীঘ্রই সরকারের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হবে বলে সূত্রের খবর। গত ১২ মার্চ থেকে স্পেনে করোনা ভাইরাসের বাড়বাড়ন্তের জন্য স্থগিত করে দেওয়া হয় দেশের প্রিমিয়র ডিভিশন লিগ। মরশুম বিঘ্ন ঘটায় স্পেনের প্রথম সারির একাধিক ক্লাবের রাজকোষেও ঘাটতি পরিলক্ষিত হয়। বাদ যায়নি মেসির ক্লাব বার্সেলোনাও। বাধ্য হয়ে ফুটবলারদের পারিশ্রমিকে কোপ ফেলতে বাধ্য হয় ক্লাবগুলো।

চলতি মরশুমে লা-লিগায় এখনও বাকি ১১ রাউন্ডের ম্যাচ। মার্চের মাঝপথে স্থগিত হয়ে যাওয়া লিগ টেবিলের শীর্ষে রয়েছে বার্সেলোনা। ২৭ ম্যাচে কাতালান ক্লাবটির সংগ্রহ ৫৮ পয়েন্ট। ঠিক দু’পয়েন্ট পিছনে ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে রিয়াল মাদ্রিদ। করোনা পরীক্ষার মধ্যে দিয়ে চলতি মাসের শুরু থেকে অনুসীলনে ফেরার উদ্যোগ নিয়েছে রিয়াল, বার্সা সহ লা-লিগার ক্লাবগুলো।

উল্লেখ্য, করোনা বিপর্যয় কিছুটা সামলে চলতি মাসের ১৬ তারিখ থেকে প্রিমিয়র ডিভিশন ফুটবল চালু করেছে জার্মানি। এবার সেই পথেই ফুটবল চালুর পথে করোনায় ইউরোপে মৃত্যুর নিরিখে তৃতীয়স্থানে থাকা স্পেন। ২৮ হাজারেরও বেশি মানুষ মারণ ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন ওই দেশে। করোনা পরবর্তী সময় ফুটবল ফেরানোর পথে ইংল্যান্ড ও ইতালিও।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ