ইংল্যান্ড: পৃথিবীর বুকে ধস নামা কোনও বিরল ঘটনা নয়। কিন্তু ধূমকেতুতেও যে ধস নামার ঘটনা বিরল। ২০১৫ তে ইউরোপের রসেটা স্পেসক্র্যাফটে এই ঘটনার সাক্ষী ছিল। এই তথ্যই বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি প্রকাশ করেছে। ধূমকেতুতে ধস নামার ছবিও ধরা পড়ে রসেটা স্পেসক্র্যাফটে।

ধূমকেতুর পৃষ্ঠে গভীর ধসের ছবিই মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়েছে এই স্পেসক্র্যাফট। তীব্র ধসের ফলে সৃষ্টি হয়েছে প্রায় ২০০০ টন পাথরকুচি। এর ৯৯ শতাংশই আটকে আছে। বাকি পাথরকুচি সম্ভবত একটি জেট এর দ্বারা ধূলোয় পরিণত হয়ে গিয়েছে।

ধূমকেতুতে ধস নামা আগের ছবি ও ধস নামার পরের ছবি, দুটোই রসেটার ক্যামেরায় ধরা পড়ে। ধস নামার পরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে ধূমকেতুতে আসওয়ান নামের একটি ভঙ্গুর ভূমিতে প্রায় ৭০০ মিটার লম্বা এবং ১ মিটার চওড়া ফাটল ধরেছে। পাঁচদিন পর ধূমকেতুর কক্ষপথ থেকে OSIRIS ক্যামেরায়ও এই ফাটল ধরা পড়েছে। তবে আগেও এই আসওয়ানএ বেশ কিছু ফাটল ছিল। আসওয়ান অংশটি সাধারণত ধূমকেতুর বাকি ধূসর, ধূলোময়, এবং বরফাবৃত পৃষ্ঠ থেকে অনেকটাই উজ্জ্বল।

এর আগেও রসেয়াট স্পেসক্র্যাফটে বিভিন্ন উদ্ভেদের ছবি ধরা পড়েছে। এর ফলেই ধূমকেতুর মধ্যে ভঙ্গুর চূড়াতে ফাটল ধরেছে বলে মনে করা হচ্ছে। ২০১৪ তে এই রসেটা ফিলাই নামে একটি ছোট্ট রোবট ধূমকেতুর পৃষ্ঠে স্থাপন করা হয়।