লখনউ: কোথায় আছেন আজম খান? এই মুহূর্তে ভারতীয় রাজনীতির অন্দরে এটাই সবথেকে বড় প্রশ্ন। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের তরফ থেকে জারি করা নোটিশ ইতিমধ্যেই তাঁর বাড়ির সামনে লাগানো হয়েছে। তার পর থেকে পলাতক ঘোষণা করা হয়েছে সমাজবাদী পার্টির শীর্ষনেতা আজম খান তার স্ত্রী এবং পুত্রকে।

বৃহস্পতিবার তাঁর বাড়িতে এই নোটিশ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। আদালত তিনটি মামলায় অভিযুক্ত আজম খান এবং তাঁর স্ত্রী -পুত্রকে পলাতক ঘোষণা করেছে। যদি আগামী ২৪ জানুয়ারির মধ্যে তাঁরা হাজিরা না দেন তাহলে তাদের সম্পত্তি যুক্ত করা হবে বলেও জানা গিয়েছে। জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে জনসমক্ষে জানানো হয়েছে সমাজবাদী পার্টির এই শীর্ষনেতা পলাতক।

অ্যাডিশানাল ডিস্ট্রিক্ট গভর্নমেন্ট কাউন্সিল রাম অবতার সাইনি জানিয়েছেন, আদালত ইতিমধ্যেই পুলিশকে জানিয়েছে যে তাঁর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে। আগেই আদালতে উপস্থিত না হওয়ার কারণে আজম খানের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছিল।

৩ জানুয়ারি ২০১৯ বিজেপি নেতা আকাশ সাক্সেনা আজম খান এবং তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছিলেন যে তাঁরা তাঁদের ছেলেকে জাল জন্ম সার্টিফিকেট পেতে সাহায্য করেছিলেন। একটি লখনউ থেকে অন্যটি রামপুর থেকে। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে গঞ্জ কোতোয়ালি পুলিশ আইপিসির ৪২০ ধারা, ৪৬৭ ধারা, ৪৬৮ ধারা, ৪৭১ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।

এর আগেই একাধিক বিতর্কিত মন্তব্য করে শিরোনামে এসেছেন এই শীর্ষ নেতা। আর এবারে এই ঘটনার পর থেকে আবারও সামনে এলেন বিতর্কিত এই নেতা। এর আগে তিনি বলেছিলেন মুসলিম বলে বারবার টার্গেট করা হয়েছে তাঁকে। তিনি বলেন তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কিছু পাননি তিনি, শুধুই হারিয়েছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, যে তিনি সবসময় মানুষের জন্য কাজ করেছেন, তাঁদের পাশে থেকেছেন। তাঁর দাবি, রাজনৈতিক জীবনে ২২ কেজি ওজন খুইয়েছেন তিনি। নির্বাচনী প্রচারে বেরিয়ে একথা বলেছিলেন আজম খান।

এছাড়াও তিনি পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে তিনি বলেছিলেন, পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করলেই এই সমস্যা থেকে রেহাই মিলবে। কি প্রয়োজনীয়তা আছে পেঁয়াজ রসুন খাওয়ার? পেঁয়াজ রসুন মাংস খাওয়া বন্ধ করলেই এই সমস্যা থেকে রেহাই মিলবে।