কেপ টাউন: ওয়ান ডে সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে দুরমুশ করে মঙ্গলবার কেপ টাউনে সিরিজের প্রথম টি২০ ম্যাচে দ্বীপ রাষ্ট্রের মুখোমুখি হয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। নির্ধারিত ২০ ওভারে অমিমাংসিত থাকার পর উত্তেজক সুপার ওভারে যবনিকা পতন হল সেই ম্যাচের। উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান ডেভিড মিলার ও স্পিনার ইমরান তাহিরের দৌলতে তিন ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল প্রোটিয়ারা।

এদিন কেপটাউন নিউল্যান্ডসে প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ১৩৪ রান তোলে শ্রীলঙ্কা। কামিন্দু মেন্ডিস ছাড়া দক্ষিণ আফ্রিকান বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে এদিন মাথা তুলে দাঁড়াতে পারেননি কোনও শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানই। দ্বীপ রাষ্ট্রের হয়ে ব্যাট হাতে সর্বোচ্চ ২৯ বলে ৪১ রানের অবদান রাখেন মেন্ডিস। প্রোটিয়াদের হয়ে বল হাতে সবচেয়ে সফল অ্যান্ডাইল ফেহলুকুয়াও ২৫ রানে তুলে নেন ৩ উইকেট। ৭ উইকেট হারিয়ে প্রোটিয়াদের জন্য ১৩৫ রানের লক্ষ্যমাত্রা ছুঁড়ে দেয় শ্রীলঙ্কা।

আরও পড়ুন: কোহলিদের অনুশীলনে সারপ্রাইজ ভিসিট সুনীলের

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৫২ রানে ৩ উইকেট খুঁইয়ে বসলেও ভ্যান ডার ডাসেন ও ডেভিড মিলারের জুটি প্রোটিয়াদের জয়ের গন্ধ পাইয়ে দেয়। চতুর্থ উইকেটে এই দুই ব্যাটসম্যানের ৬৬ রানের পার্টনারশিপ শ্রীলঙ্কাকে ব্যাকফুটে ঠেলে দিলেও ডাসেনকে ফিরিয়ে ম্যাচে দুরন্ত কামব্যাক করে দ্বীপ রাষ্ট্র। ৩০ বলে ৩৪ রান করে সাজঘরে ফেরেন ডাসেন। উইকেটের পিছনে গ্লাভস হাতে একটি ক্যাচ ও একটি স্টাম্পের পাশাপাশি ২৩ বলে ঝোড়ো ৪১ রান করে দলের জয়ের ভিত গড়ে দেন মিলার।

আরও পড়ুন: পরম্পরা ভেঙে টেস্ট ক্রিকেটে এবার নম্বর খোদাই জার্সি

কিন্তু টেল এন্ডারদের ব্যাটিং ব্যর্থতায় নির্ধারিত ২০ ওভারে জয় পেতে ব্যর্থ হয় প্রোটিয়ারা। প্রোটিয়াদের শেষ ৫ উইকেটের পতন হয় মাত্র ১৫ রানে। শেষ বলে জয়ের জন্য ২ রান দরকার থাকলেও এক রান নিতে সমর্থ হন তাহির-স্টেইন জুটি। উইকেটের পিছনে সহজ রান আউটের সুযোগ ডিকওয়েলা হাতছাড়া না করলে ম্যাচ জিততে পারত শ্রীলঙ্কাও।

টাই হওয়ায় ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে। একটি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারি সহযোগে সুপার ওভারে মালিঙ্গার থেকে ১৩ রান আদায় করেন ডেভিড মিলার। জবাবে বল করতে এসে মাত্র ৫ রান খরচ করেন প্রোটিয়া লেগ স্পিনার ইমরান তাহির। অল-রাউন্ড পারফরম্যান্সে ম্যাচের সেরা ডেভিড মিলার।