স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নাম চূড়ান্ত হওয়ার পর সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাল্টা সৌজন্য দেখালেন সৌরভও ৷ তিনি বললেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগে আমার দিদি পরে মুখ্যমন্ত্রী”৷

গত রবিবার বোর্ডের নাটকীয় ভাবে বিসিসিআই-এর প্রেসিডেন্ট হন ‘দাদা’। প্রথমে ব্রিজেশ প্য়াটেলের নাম ঠিক হলেও পরে জানা যায় সৌরভই বোর্ডের প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন জমা দিতে চলেছেন। তারপরই মুখ্যমন্ত্রীর পক্ষ থেকে টুইট-বার্তায় প্রশংসা ও অভিনন্দনে ভরিয়ে দেওয়া হল সদ্য় মনোনীত বোর্ড প্রেসিডেন্টকে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সোমবার সকালেই সৌরভকে টুইটে লেখেন,” বোর্ড প্রেসিডেন্ট পদে সর্বসম্মত ভাবে নির্বাচিত হওয়ার জন্য সৌরভকে অভিনন্দন। অজস্র শুভেচ্ছা রইল। তুমি ভারত ও বাংলাকে গর্বিত করেছো। সিএবি প্রেসিডেন্ট হিসেবেও তোমার কাজে গর্বিত। একটা দুর্দান্ত ইনিংসের অপেক্ষায় থাকলাম।”

বুধবার নবান্নে মন্ত্রীসভার বৈঠকের পর নব নির্বাচিত বিসিসিআই সভাপতিকে সংবর্ধনা দেওয়ার প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “সৌরভ ঘরের ছেলে। ওর সঙ্গে কথা হয়েছে।”

বৃহস্পতিবার সৌরভ বললেন, “মুখ্যমন্ত্রী আমার খুব কাছের। আমার দিদিই উনি। চিফ মিনিস্টার পরে, আগে আমার দিদি। ওঁর শুভেচ্ছা পেয়েছি। ওঁর সঙ্গে আমার অসম্ভব ভাল সম্পর্ক। আমি ওঁকে প্রচণ্ড শ্রদ্ধা করি।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, সৌরভের এই মন্তব্য অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর থেকেই সৌরভের সঙ্গে বিজেপির সম্পর্ক নিয়ে জল্পনা চলছে। কেউ কেউ বলছেন, বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনে তাঁকে ব্যবহার করতে চাইছে বিজেপি। সেই কারণেই তাঁকে বোর্ড সভাপতি করা হয়েছে৷ যদিও সৌরভ এই জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়েছেন। বলেছেন, এই সংক্রান্ত কোনও আলোচনাই কেউ করেননি তাঁর সঙ্গে।

অনেকদিন আগে থেকেই সৌরভের বিজেপিতে যোগদানের গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। কিছুদিন আগে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করেন সৌরভ। তবে সৌরভ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ভাল সম্পর্ক রাখলেও কোনও দলেই যোগ দেননি। এ বারও মমতাকে ‘দিদি’ বলে সম্বোধন করে অনেক জল্পনাতেই জল ঢাললেন তিনি।