রাঁচি: দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ইতিহাস সৃষ্টি করার পরেও সাংবাদিকদের প্রশ্নবাণ সামলাতে হল ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে৷ বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি মহেন্দ্র সিং ধোনির ক্রিকেট ভবিষ্যত নিয়ে প্রয়োজনে সৌরভের সঙ্গে কথা বলবেন বলেও জানান কোহলি৷

বুধবার মুম্বইয়ে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সদর দফতরে এজিএম-এর পরই ৩৯ বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেবেন সৌরভ৷ মঙ্গলবার মুম্বই উড়ে যান মহারাজ৷ বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় ইলেক্ট-প্রেসিডেন্ট হলেও বুধবার এজিএম-এর পরই সরকারিভাবে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসবেন সৌরভ৷ এরপরই বোর্ডের নতুন সংবিধান অনুযায়ী ভারতীয় ক্রিকেট পরিচালনা করবেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক৷

ভারতীয় ক্রিকেটে এই মুহূর্তে সবচেয়ে চর্চিত বিষয় ধোনির আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ভবিষ্যত৷ বিশ্বকাপের পর থেকে এখনও পর্যন্ত দেশের জার্সিতে কোনও ম্যাচ খেলেননি ধোনি৷ সেনাবাহিনীর সাম্মানিক কর্নেল হিসেবে দেশ সেবা করার জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন ধোনি৷ তারপর ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধেও সীমিতওভারে ফর্ম্যাটে খেলেননি মাহি৷ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে আসন্ন তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজেও ধোনির খেলার সম্ভাবনাও কম৷ বৃহস্পতিবারই বাংলাদেশ সিরিজের দল বেছে নেবেন নির্বাচকরা৷

মঙ্গলবার ধোনির শহরে প্রোটিয়াদের হোয়াইটওয়াশের পর সাংবাদিক বৈঠকে ক্যাপ্টেন কোহলি বলেন, ‘আমি সৌরভকে অভিনন্দন জানাচ্ছি৷ ও বোর্ড প্রেসিডেন্ট হচ্ছে, এটা দারুণ ব্যাপার৷ তবে ধোনির ব্যাপারে আমার সঙ্গে সৌরভের এখনও কোনও কথা হয়নি৷ তবে আমি ওর সঙ্গে দেখা করে এই ব্যাপারে কথা বলব৷’

শোনা যাচ্ছে, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজে বিশ্রাম নিতে পারেন কোহলি৷ এ ব্যাপারে সৌরভের বক্তব্য, ‘ ২৪ তারিখ আমি বিরাটের সঙ্গে আলোচনায় বসব। প্রেসিডেন্ট হিসেবে অধিনায়কের সঙ্গে যেমন আলোচনা করা প্রয়োজন আমাদের মধ্যে তেমনই আলোচনা হবে। অধিনায়ক হিসেবে ও বিশ্রামের আবেদন করতেই পারে।’

বিরাটের নেতৃত্বে ভারত বিশ্বকাপ ফাইনালে উঠতে না-পারলেও তারপর ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ জিতেছে ভারত৷ প্রথমবার প্রোটিয়াদের হোয়াইটওয়াশ করেছে টিম ইন্ডিয়া৷ এবার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টি-২০ সিরিজ এবং দু’টি টেস্ট খেলবে ভারত৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I