কলকাতা: ২০০৩ থেকে ২০২০৷ ১৭ বছরের ব্যবধানে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের পদাঙ্ক অনুসরণ করতে চলেছেন বিরাট কোহলি৷ বিশ্বকাপে উইকেটের পিছনে দু’জনের আস্থা সেই রাহুলেই৷

দক্ষিণ আফ্রিকায় ২০০৩ বিশ্বকাপে রাহুল দ্রাবিড়কে দিয়ে উইকেটকিপিং করিয়ে চমকে দিয়েছিলেন ক্যাপ্টেন সৌরভ৷ ভারত ফাইনালেও উঠেছিল৷ আসন্ন ২০২০ টি-২০ বিশ্বকাপে লোকেশ রাহুলকে দিয়ে উইকেটকিপিং করানোর পথে হাঁটতে চলেছেন বিরাট কোহলি৷

নিউজিল্যান্ড সফরে ঋষভ পন্তকে বসিয়ে রাহুলের হাতে উইকেটকিপিং গ্লাভস তুলে দেওয়ার অর্থ বিশ্বকাপে একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান খেলানো৷ শুক্রবার অকল্যান্ডে সিরিজের প্রথম ম্যাচের আগের দিন এমনটাই জানিয়েছিলেন কোহলি৷ ইডেন পার্কের উইকেটের পিছনে গ্লাভস হাতে পারফর্ম করার পাশাপাশি ব্যাট হাতেও দলকে জেতাতে বড় ভূমিকা নেন রাহুল৷

২০০৩ বিশ্বকাপে দলে ব্যালেন্স আনতে একজন অতিরিক্ত ব্যাটসম্যান খেলিয়েছিলেন ক্যাপ্টেন সৌরভ৷ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজে দ্বিতীয় ম্যাচ থেকেই সেই পথে হাঁটা লাগান ক্যাপ্টেন কোহলি৷ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে মুম্বইয়ে সিরিজের প্রথম ওয়ান ডে ম্যাচে ব্যাটিং করার সময় প্যাট কামিন্সের বউন্সারে মাথায় চোট পান পন্ত৷ আঘাত গুরুতর না-হলেও সতর্কতামুলক ব্যবস্থা হিসেবে আর ফিল্ডিং করতে নামানো হয়নি পন্তকে৷ ফলে উইকেটের পিছনে গ্লাভস হাতে দাঁড়িয়েছিলেন লোকেশ রাহুল৷ ভারত ম্যাচ হারলেও উইকেটকিপিংয়ে মন কাড়েন রাহুল৷

সিরিজের পরের দু’টি ওয়ান ডে ম্যাচেও পন্ত ফিট হলেও উইকেটের পিছনে গ্লাভস হাতে রাহুলেই ভরসা রাখেন কোহলি৷ তারপর নিউজিল্যান্ড সফরেও ভারত অধিনায়কের সেই আস্থা অটুট৷ স্বাভাবিকভাবেই কিউয়িদের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচে দলে জায়গা হয়নি পন্তের৷

এই প্রসঙ্গে সর্বভারতীয় এক টেলিভিশন চ্যালেনকে দেওয়া সাক্ষাতকারে রাহুলের প্রশংসা করেন সৌরভ৷ প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক তথা বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘বিরাট কোহলি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ টিম ম্যানেজমেন্ট ও ক্যাপ্টেন মিলে লোকেশ রাহুলকে কিপিং করানোর সিদ্ধান্ত নেয়৷ রাহুল ওয়ান ডে এবং টি-২০ ক্রিকেটেও ভালো খেলছে৷ টেস্ট ক্রিকেটে ও দারুণ শুরু করেছিল৷ তারপর কিছুটা পিছিয়ে পড়ে৷ কিন্তু সীমিত ওভারের ফর্ম্যাটে ও ধারাবাহিকভাবে দারুণ পারফর্ম করে চলেছে৷’