পোর্ট অফ স্পেন: পাঁচ মাস পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে তিন অঙ্কের রান করলেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। শুধু তাই নয়, ওয়ান-ডে ক্রিকেটে ৪২ তম শতরান পূর্ণ করার দিন কুইন্স পার্ক ওভালে একাধিক নজির গড়লেন বিরাট। দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে ছাপিয়ে দেশের দ্বিতীয় সর্বাধিক রান সংগ্রহকারী হওয়ার দিনে কোহলি ফের প্রশংসা আদায় করে নিলেন মহারাজের।

কুইন্স পার্ক ওভালে রবিবার ১৯ রান করা মাত্রই ওয়ান-ডে ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সব থেকে বেশি রান করা ক্রিকেটারে পরিণত হন ভারত অধিনায়ক। তিনি ভেঙে দেন প্রাক্তন পাক তারকা জাভেদ মিঁয়াদাদের রেকর্ড। প্রাক্তন পাক ব্যাটসম্যানের ১৯৩০ রানের রেকর্ড টপকে ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে তাঁর সার্বিক সংগ্রহ দাঁড়াল ২০৩২ রান। এই নিরিখে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ২০০০ রান করা প্রথম ক্রিকেটারও হলেন কোহলি। এছাড়া ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান-ডে’তে ৮টি শতরানের নজির গড়লেন বিরাট।

এমনই একাধিক রেকর্ড গড়ার দিনে উল্লেখযোগ্যভাবে বিরাট এদিন ওয়ান-ডে ক্রিকেটে রানের নিরিখে টপকে যান প্রাক্তন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে। সচিন তেন্ডুলকরের পর ভারতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ান-ডে ক্রিকেটে এতদিন দ্বিতীয় রানসংগ্রাহক ছিলেন ‘প্রিন্স অফ ক্যালকাটা’। সৌরভকে টপকাতে কোহলির প্রয়োজন ছিল ৭৮ রান। ইনিংসের ৩২তম ওভারের তৃতীয় বলে জেসন হোল্ডারকে থার্ডম্যান বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যান বিরাট। অর্থাৎ সৌরভকে টপকে বিরাট এখন ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ওয়ান ডে রান সংগ্রহকারী। সামনে শুধুই কিংবদন্তি সচিন তেন্ডুলকর (১৮৪২৬ রান)।

আর প্রাক্তন অধিনায়ককে টপকে দেশের দ্বিতীয় সর্বাধিক রান সংগ্রহকারী হওয়ার দিনে বিরাটের দরাজ প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন খোদ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। রবিবার কুইন্স পার্ক ওভালে কোহলির শতরান দেখে মুগ্ধ সৌরভ আর নিজেকে সামলাতে পারেননি। টুইটারে এদিন মহারাজ লিখলেন, ‘ওয়ান-ডে ক্রিকেটে বিরাট কোহলির আরেকটা মাস্টারক্লাস ইনিংস। অসাধারণ প্লেয়ার।’

স্বাভাবিকভাবে একইদিনে ওয়ান-ডে ক্রিকেটে সব থেকে বেশি রান করা ক্রিকেটারদের তালিকাতেও নিজেকে ৮ নম্বরে তুলে আনলেন কোহলি। এক নম্বরে থাকা সচিন ছাড়া বিরাটের থেকে বেশি রান করেছেন কুমার সাঙ্গাকারা (১৪২৩৪), রিকি পন্টিং (১৩৭০৪), সনৎ জয়সূর্য (১৩৪৩০), মাহেলা জয়াবর্ধনে (১২৬৫০), ইনজামাম-উল-হক (১১৭৩৯) ও জ্যাক কালিস (১১৫৭৯)।

১২৫ বলে অধিনায়কোচিত ১২০ রান হাঁকিয়ে ম্যাচ সেরা কোহলি নিজে জানালেন, ‘দলের প্রয়োজনে শতরান করতে পেরে ভালোলাগছে। শিখর এবং রোহিত বড় রান করতে পারায় সিনিয়র হিসেবে আমার কাছে সুযোগ ছিল এগিয়ে আসার। আমি সেটা কাজে লাগিয়েছি।’