নয়াদিল্লি: পরতে-পরতে নাটক বললেও হয়তো কম বলা হবে। আর সেই নাটকের যবনিকা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে বিসিসিআই’য়ের নয়া প্রেসিডেন্ট পদে আসীন হতে চলেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। কর্ণাটক ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সচিব তথা দেশের প্রাক্তন টেস্ট ক্রিকেটার ব্রিজেশ প্যাটেল দিনভর এই দৌড়ে এগিয়ে থাকলেও শেষমুহূর্তে বাজিমাত করে গেলেন বাংলার ‘মহারাজ’।

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, ব্রিজেশ প্যাটেলের সঙ্গে বিসিসিআই মসনদে বসার দৌড়ে এগিয়ে ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পুত্র জয় শাহও। তবে প্রেসিডেন্ট নয়, বিসিসিআই’য়ের নয়া সচিব পদে আসীন হতে চলছেন অমিত পুত্র। সব ঠিকঠাক থাকলে নয়া কোষধ্যক্ষ হিসেবে বিসিসিআই পেতে চলেছে অরুণ ধুমালকে। প্রাক্তন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট অনুরাগ ঠাকুরের ভাই হিসেবে ক্রিকেটমহলেবেশ জনপ্রিয় তিনি। সোমবার বিভিন্ন পদে মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষদিন। তবে নির্বাচন নয়, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতাতেই সর্বসম্মতিক্রমে বোর্ডের পদ অলংকরণ করতে চলেছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় থেকে অরুণ ধুমাল।

ক্রিকেটমহলে জল্পনা ২০২১ পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই বোর্ডের নয়া প্রেসিডেন্ট পদে বসানো হচ্ছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে। অর্থাৎ, ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ থেকে আশাতীত সাফল্যের বোর্ডের প্রেসিডেন্ট পদে সৌরভকে বসানোর পিছনে বিজেপির নানা গেমপ্ল্যানই কাজ করছে বলে মত ভিন্নমহলে। যদিও প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচিত হলেও ২০২০, সেপ্টেম্বরে সেই পদ থেকে অব্যাহতি দিতে হবে সিএবি প্রেসিডেন্টকে। কারণ শীর্ষ আদালতের নিয়মানুসারে টানা ছ’বছর বোর্ডের কোনওরকম পদে দায়িত্ব সামলানোর পর সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ‘কুলিং পিরিয়ডে’ যাওয়া আবশ্যক।

চারশোরও বেশি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা দেশের অন্যতম সফল অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট পদ অলংকৃত করার বিষয়টি সাদরে গ্রহণ করছেন সকলে। উত্তর-পূর্ব জোনের এক সিনিয়র বিসিসিআই আধিকারিকের কথায়, ‘শ্রী নিবাসন তাঁর হয়ে ব্যাট ধরার কারণে ব্রিজেশ দৌড়ে ছিলেন ঠিকই। কিন্তু তাঁকে সম্মতিক্রমে মেনে নিতে পারেনি সকলে। নয়া প্রেসিডেন্ট হিসেবে সৌরভকে পাওয়ায় আমরা ভীষণ খুশি।’ সবমলিয়ে গত কয়েকদিন ধরে রাজধানীতে বিস্তর লবির পর প্রিন্স অফ ক্যালকাটা’র বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট পদে বসা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা।

আগামী ২৩ অক্টোবর বার্ষিক সাধারণ সভায় আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে নয়া প্রেসিডেন্টে নাম। এদিকে কীর্তি আজাদকে সরিয়ে আইসিএ প্রতিনিধি হিসেবে নয় সদস্যের অ্যাপেক্স কাউন্সিলে জায়গা করে নিলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা সিওএ সদস্য অংশুমান গায়কোয়াড। মহিলা প্রতিনিধি হিসেবে আগেই আইসিএ কমিটিতে জায়গা করে নিয়েছিলেন শান্তা রঙ্গস্বামী।