কলকাতা: নাইট বনাম দিল্লি লড়াইয়ে একঝাঁক তারার মাঝে আকর্ষণের কেন্দ্রে ঘরের ছেলে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়৷ এই ইডেনেই দেশের জার্সিতে প্রতিনিধিত্ব করেছেন৷ বহু ম্যাচে, ব্যাট হাতে অফ ড্রাইভে একসময় ইডেন জনতার মনে ঝড় তুলতেন মহারাজ৷ শুধু ক্রিকেটার কেন অধিনায়ক হিসেবেও ক্রিকেটের নন্দনকাননে সাফল্য রয়েছে মহারাজের৷

বাছতে বসলে প্রথমেই রাখতে হবে ২০০১ এর ঐতিহাসিক ইডেন টেস্ট৷ যেখানে ফলো-অন খেয়েও জোড়া ফলা লক্ষ্ণণ-দ্রাবিড়ের কাঁধে চেপে স্টিভ ওয়া’র অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচ জিতেছিলেন সৌরভ৷ ইডেনেই ওয়া’র অস্ট্রেলিয়ার জয়রথ থামিয়েছিলেন সৌরভ অ্যান্ড কোম্পানি৷ দেশের জার্সির পর, নাইটদের নেতা হিসেবেও ক্রিকেটের নন্দনকাননে একাধিক ম্যাচ জিতেছেন৷

আরও পড়ুন- শেষ বলের ছক্কায় থ্রিলার জয় চেন্নাইয়ের

পরে ২০১২-র আইপিএলে এই ইডেনেই প্রতিপক্ষ পুনে দলের কাপ্তান হিসেবে ফিরে গ্যালারির কুর্ণিশ কুড়িয়েছেন৷ প্রশাসক হিসেবে হাতেছড়িও এই ই়ডেনেই৷ প্রথম বড় সাফল্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত-পাক ম্যাচ আয়োজন৷ এখনও পর্যন্ত প্রশাসক হিসেবে সাফল্যের ফাইলে সবাই উপরে লেখা থাকবে, সফল ভাবে টি-টিয়োন্টি বিশ্বকাপ ফাইনাল আয়োজন করা৷ ২০১৬এর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ফাইনাল সহ মোট পাঁচটি ম্যাচ সফলভাবে আয়োজন করেছিল সিএবি৷ সেই প্রশাসক সৌরভই এবার ইডেনে অন্য ভূমিকায়৷ হাতের তালুর মতো চেনা মাঠে শুক্রবার নতুন সাফল্যের খোঁজে নামতে চলেছেন মহারাজ৷

ম্যাচের আগের রাতে ইডেনে দিল্লির প্রস্তুতিতে মেন্টর সৌরভকে পাওয়া গেল একেবারে নতুন রোলে৷ ক্যাপিটালসের প্রস্তুতির পুরো সময়ে, কখনও নেটের পিছনে শিখরের নকিং পরখ করলেন, কখনও পন্ত-পৃথ্বী, শ্রেয়সদের  আলাদা ডেকে পেপটক দিলেন৷ পুরো দল নিয়ে হার্ডেল করে নাইটদের শক্তি-দুর্বলতা নিয়ে ময়নাতদন্তের নির্যাসটাও লাস্ট মিনিট সাজেশনে দিয়ে দিলেন৷ ছবির কোলাজে ধরা পরা সৌরভ মুহূর্তগুলো জুড়লে তখন  মহারাজ যেন ‘গুরু গঙ্গোপাধ্যায়’৷ টিমের হেডস্যার পন্টিং হলেও ইডেনে সৌরভই যেন দলের বস৷

আরও পড়ুন- ঘরের ছেলে নাকি ঘরের ফ্র্যাঞ্চাইজি সমর্থন কার দিকে, উত্তরে যা বললেন…

শুক্রবারের ইডেনে কেকেআরের বিরুদ্ধে দিল্লি ক্যাপিটালস দলের ডাগআউটে থাকবেন সৌরভ৷ মাঠে নেমে নয়, সাইড লাইনের ধারে ডাগআউটে বসেই দিল্লিকে তাতানোর কাজটা করে যাবেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা৷ ক্রিকেট জীবনে খেলোয়াড় হিসেবে ইডেনে অনেক সাফল্য পেয়েছেন, প্রশাসক ইনিংসেও ইডেনে মহারাজের সাফল্য ঈর্ষণীয়৷ এবার ইডেনে নতুন ভূমিকায়(দিল্লির মেন্টর ভূমিকায়) ‘প্রথম ম্যাচে’ নেমে নতুন সাফল্য পান কিনা, সেটাই এখন দেখার৷