কলকাতা: ঢাকে কাঠি পড়ে গিয়েছে বোর্ড প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের। দিল্লি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট রজত শর্মার সঙ্গে প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে তাঁর নাম প্রবলভাবে থাকলেও এখনই সেই বিষয়ে মুখ খুলতে চান না সিএবি প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সোমবার কলকাতা ২৫কে ম্যারাথন ২০১৯ নিয়ে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে এবিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি।

উল্লেখ্য, রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার প্রশাসনিক পদে আসীন থাকার পর সাধারণত তিনবছরের ‘কুলিং পিরিয়ডে’ থাকা আবশ্যক। বোর্ডের এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করা হলেও শীর্ষ আদালত এবিষয়ে চূড়ান্ত কিছু ঘোষণা করেনি এখনও। তবু সৌরভের বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার রাস্তায় থেকে যাচ্ছে বেশ কিছু প্রশ্নচিহ্ন। তাই আসন্ন সিএবি নির্বাচন ও অক্টোবরে বোর্ডের নির্বাচনের আগে এদিন সাংবাদিকদের প্রশ্নে বিশেষ কিছু বলতে রাজি হলেন না প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক।

এদিকে বিজয় হাজারে ট্রফির জন্য সোমবার ঘোষিত হল বাংলা দল। বিজয় হাজারে ট্রফিতে এলিট গ্রুপ-‘সি’তে রয়েছে বাংলা। বাংলার সঙ্গে একই গ্রুপে রয়েছে তামিলনাড়ু, রাজস্থান, জম্মু ও কাশ্মীর। ত্রিপুরা, মধ্যপ্রদেশ, রেলওয়েজ, বিহার ও সার্ভিসেস। জয়পুরের মাটিতেই বিজয় হাজারের গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলি খেলবে বাংলা। সেই লক্ষ্যে সোমবার সিএবি’তে প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে ম্যারাথন বৈঠকের পর অধিনায়ক এবং সহ-অধিনায়ক হিসেবে যথাক্রমে অভিমন্যু ঈশ্বরন ও সুদীপ চ্যাটার্জিকে বেছে নেন নির্বাচকমন্ডলীর সদস্যরা।

পাশাপাশি ২০১৯ কলকাতা ২৫কে ম্যারাথন উপলক্ষ্যে এদিন শহরের অভিজাত একটি হোটেলে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সেখানে বাংলার দল নির্বাচন প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে সিএবি প্রেসিডেন্টের মুখে তারুণ্যের জয়গানই শোনা যায়। প্রসঙ্গক্রমে আসে ঘরের মাটিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ভারতের আসন্ন সিরিজের কথা। সেখানে দ্ব্যর্থহীন-ভাবেই কোহলির টিম ইন্ডিয়াকে এগিয়ে রেখেছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। একইসঙ্গে অ্যাশেজে স্টিভ স্মিথের স্মরণীয় কামব্যাক দেখার পর অনেকে নির্দ্বিধায় স্মিথকে কোহলির থেকে এগিয়ে রাখছেন কয়েক যোজন। কিন্তু তাদের সঙ্গে একমত নন সিএবি প্রেসিডেন্ট। সৌরভের কথায়, ‘এভাবে একটি সিরিজ দেখে তুলনায় যাওয়াটা একেবারেই অনুচিৎ। বিরাটও একজন বিশ্বমানের ব্যাটসম্যান।’

স্বাভাবিকভাবেই অনুষ্ঠানে বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার দৌড়ে কতটা এগিয়ে রয়েছেন তিনি। প্রশ্ন করা হয় সৌরভকে। কিন্তু দিল্লি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট রজত শর্মার সঙ্গে এই দৌড়ে তাঁর নাম থাকলেও এদিন কিছুই খোলসা করতে চাননি তিনি। এমনিতেই রাজ্য সংস্থার ক্রিকেট প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব সামলানোর পর তিনবছরের ‘কুলিং পিরিয়ড’ নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট কোনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখন জানায়নি। তার উপর সামনেই রাজ্য ক্রিকেট সংস্থাগুলোর নির্বাচনের পর অক্টোবরের বোর্ডের নির্বাচনের আগে পুরো বিষয়টিতে প্রত্যেককে ধোঁয়াশায় রাখলেন সৌরভ।

এদিকে কলকাতা ২৫কে ম্যারাথনের সিলভার লেবেল অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১৫ ডিসেম্বর। তার আগে এদিনের অনুষ্ঠানে সৌরভ তুলে ধরেন চ্যাপেল জমানায় ২০০৬ দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে ওয়ান্ডারার্স ও নিউল্যান্ডসে প্রোটিয়া পেসারদের বিরুদ্ধে তার দুরন্ত ব্যাটিং পারফরম্যান্সের কথা। উল্লেখ্য, তার আগে ইডেনে প্রস্তুতি হিসেবে ‘রান…রান অ্যান্ড রান’ এই মন্ত্রেই নিজেকে উদ্বুদ্ধ করেছিলেন বলে জানান মহারাজ।