ছবি: প্রতীকী

আলিপুরদুয়ার : হাতিদের সুরক্ষায় এবার পদক্ষেপ নিতে চলেছে নর্থইস্ট ফ্রন্টলাইন রেলওয়ে (NFR)৷ হাতি যাতে এবার রেলের ট্র্যাকের উপর উঠে না আসে, তার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছে তারা৷ উত্তরবঙ্গ, উত্তর বিহার ও উত্তর পূর্ব ভারতে ২৭টি এলিফ্যান্ট করিডোর হয়েছে৷

রেল মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, স্থানীয়রা জানিয়েছেন মৌমাছির ভনভন শব্দে হাতি পালিয়ে যায়৷ এবার তাই সেই উদ্যোগটিই নেওয়া হয়েছে৷ ইতিমধ্যে অসমের রঙ্গিয়ায় এই পদ্ধতিতে কাজ করা শুরু হয়েছে৷ কারও ফলও মিলেছে হাতেনাতে৷ এবার পশ্চিমবঙ্গের আলিপুরদুয়ার ডিভিশনে এই ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

আরও পড়ুন : পশ্চিমবঙ্গকে দেখে মোদীকে সরকার চালাতে নির্দেশ মমতার

সরকারি সূ্ত্রে জানানো হয়েছে, মৌমাছির মতো শব্দ কোনও কোনও স্টপে একই অ্যামপ্লিফায়ারে বাজানো হয়েছিল৷ হাতি যাতে ট্রেনে ধাক্কা না খায়, তাই এই ব্যবস্থা৷ ইন্টারনেট থেকে তাই মৌমাছির আওয়াজ ডাউনলোড করে বিভিন্ন স্থানে বাজিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ হাতি প্রায় ৬০০ মিটার দূর থেকে এই শব্দ শুনতে পাচ্ছে৷ লেভেল ক্রসিং ও অন্য দরকারী জায়গাগুলিতে এই আওয়াজ বাজানো হচ্ছে৷

আলিপুর ডিভিশনের পাব্লিক রিলেশন অফিসার প্রণবজ্যোতি শর্মা জানিয়েছেন, রঙ্গিয়া ডিভিশনের গোরপাড়ায় ডিভাইস ইনস্টল করার পর ট্রেনের ধাক্কায় কোনও হাতির মৃত্যু ঘটেনি৷ ২০১৭ সালের মাঝামাঝি থেকে এই ঘটনা ঘটছে৷ স্থানীয়রা জানিয়েছে কখনও কখনও হাতি সেখানে উপস্থিত হচ্ছে৷ কিন্তু রেল লাইন পর্যন্ত পৌঁছচ্ছে না৷ আওয়াজের জন্যই এমন হচ্ছে বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন৷

গত সপ্তাহে হাবাইপুরের কাছে অসম লুমদিং রিজার্ভ ফরেস্টে সম্প্রতি ট্রেনের ধাক্কায় হাতির মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে৷ গুয়াহাটি-শিলচর এক্সপ্রেসের সঙ্গে হাতিটির ধাক্কা লাগে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.