স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আগামিকাল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে দিল্লি পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করবেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। শুধু দিল্লি পুলিশের কাছেই নয়, অভিষেকের বিরুদ্ধে সব প্রমাণ নিয়ে তিনি সিবিআই ও ইডির কাছে যাবেন বলেও জানিয়েছেন।

সোমবার তিনি জানান, দল অর্থাৎ বিজেপি তাঁকে অনুমতি দিলে তিনি রাষ্ট্রপতির কাছেও যেতে রাজি। তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কিভাবে কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি তৈরি করলেন, সেটা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

Kolkata24x7-কে এই বিষয়ে উত্তর দিতে গিয়ে তিনি অভিষেককে ‘হরিদাস ব্যানার্জী’ বলেও উল্লেখ করেন।

সোমবার প্রথমে নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে একটি পোস্ট করেন সৌমিত্রবাবু৷ সেখানে তিনি বলেছেন, ‘‘একটা হনুমান লঙ্কাকাণ্ড করেছিল আর আমি তা করে দেখাব মিস্টার হরিদাস ভাইপো। দিল্লিতে কার কত সম্পত্তি? কে কত টাকা নিয়েছে আমার কাছ থেকে তা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে কেস করছি। সেখানেই দেখা হবে।’’

শুধু তাই নয়, নিজের সম্পর্কে বলতে গিয়ে সৌমিত্রবাবু বলেন, ‘‘আমি ৫লক্ষ টাকা লোন নিয়ে কাজ করছি৷ আর হরিদাস ভাইপো আমার নামে দুর্নীতির মিথ্যা অভিযোগ এনেছে৷ তাই আমি এবার সমস্ত প্রমাণ সহ মাঠে নামবো৷ আমার কোনও ভয় নেই৷ কারণ দিল্লিতে আমার সঙ্গে যে ঘটনা ঘটেছিল তার সমস্ত প্রমাণ আছে৷’’

উল্লেখ্য দু’দিন আগেই বাঁকুড়ার বরজোড়া থানায় সৌমিত্র খাঁর নামে প্রতারনার অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রশান্ত মণ্ডল নামে এক তৃণমূল কর্মী৷ সৌমিত্রবাবু নকি তার কাছ থেকে চাকরি দেওয়ার নাম করে বেশ কিছু টাকা নিয়েছিলেন৷ কিন্তু চাকরি তো হয়নি আর টাকাও ফিরিয়ে দেননি সৌমিত্র৷

রাজ্যের যুবসভাপতির বিরুদ্ধে এই দুর্নীতির অভিযোগে সরগরম রাজ্য রাজনীতি৷ যদিও শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে এই বিষয়ে এখনও কোনও জবাব মেলেনি৷ আপাতত বিষয়টি নিয়ে মুখে কুলুপ তৃণমূলের রাজ্য নেতৃত্বের৷