দুর্গাপুর: বাংলার শিল্পীদের একাংশকে তীব্র আক্রমণ বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁয়ের৷ শিল্পীদের ধান্দাবাজ বলে কটাক্ষ করলেন বিজেপি সাংসদ৷ একইসঙ্গে শিল্পীরা টাকার লোভে এদিক-এদিক ছোটেন বলেও কটাক্ষ ওই বিজেপি নেতার৷

নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে কেন্দ্র-বিরোধিতায় সরব বিজেপি-বিরোধী একাধিক রাজনৈতিক দল৷ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পথএ নেমে প্রতিবাদ জানাচ্ছএন বুদ্ধিজীবীদের একাংশও৷ ছবির কলাকুশলী ও অন্য পেশার সঙ্গে যুক্ত শিল্পীরাও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চড়াচ্ছেন৷ বাংলাতেও একইভাবে প্রতিবাদে সরব শিল্পীদের একাংশ। দিন কয়েক আগে ‘কাগজ আমরা দেখাব না’ শীর্ষক একটি ভিডিও সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। ভিডিওটিতে রয়েছেন সব্যসাচী চক্রবর্তী, রূপম ইসলাম, স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়, মনোরঞ্জন ব্যাপারী, ধৃতিমান চট্টোপাধ্যায়, কঙ্কণা সেন শর্মা, নন্দনা দেবসেন-সহ প্রমুখ। ভিডিও-র মাধ্যমেই এনআরসি ও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে সুর চড়ান তাঁরা।

শিল্পীদের এই প্রতিবাদের বিরুদ্ধে এর আগেই মুখ খুলেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, আসানসোলের বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা আসানসোলের সাংসদ বাবুল খানিকটা ব্যাঙ্গাত্মক সুরেই শিল্পীদের সমালোচনা করেছেন। ফেসবুকে বাবুল লেখেন ‘ধুর বাবা! কি মুশকিল! কাগজ কেউ চাইবেই না। কীসের কাগজ? কেন চাইবে? আপনারা কি শরণার্থী? সিএএ আসলে কী সেটা তো বুঝতে হবে আগে। তবে ভিডিওটা ভালো হয়েছে। অভিনন্দন!’

এবার বাংলার শিল্পীদের তীব্র আক্রমণ করলেন বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের বিজেপি সাংসদ৷ এই প্রসঙ্গে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ‘আমরা কাগজ দেখাব না! আরে কাগজ চেয়েছেটা কে? কাগজ দেখাব না, এটা না বলে কাগজগুলো ছিঁড়ে ফেলুন৷ তাহলে বুঝব দম আছে’৷ একইসঙ্গে শিল্পীদের কটাক্ষ করে সৌমিত্র আরও বলেন, ‘লাজলজ্জহীনদের মতো কথা বলছেন! আপনারা ধান্দাবাজ। নিজেদের স্বার্থে টাকার দরকার হলে তো ছুটে ছুটে যাবেন।’ফেসবুকে রীতিমতো ভিডিও পোস্ট করে বাংলার শিল্পীদের একাংশের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ৷

শুধু সমালোচনা করাই নয়, নাম ধরে ধরে শিল্পীদের আক্রমণ করেছেন সৌমিত্র খাঁ৷ বিজেপি সাংসদের রোষের মুখে পড়েছেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় থেকে শুরু করে সংগীত শিল্পী রূপম ইসলাম, অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তী-সহ অন্যরা।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব