স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: সকাল ঠিক নটা৷ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অপিসে সাজো সাজো রব৷ আর কিচুক্ষণের মধ্যেই ঘোষণা করা হবে এবছরের মাধ্যমিকের মেধাতালিকা৷ টানটান উত্তেজনা ছিল বাঁকুড়ার জুনবেদিয়ার পণ্ডা পরিবারে৷ সবার নজর ছিল টিভির পর্দায়৷

একের পর এক নাম ঘোষণা হচ্ছে৷ তখনই নবম স্থানাধিকারীদের নাম ঘোষণা করলেন পর্ষদ সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়৷ সৌগত পণ্ডা৷ নিজের নাম শুনে প্রথমে বিশ্বাস হয়নি৷ পরে স্কুলের নাম শুনে বাস্তবে ফেরে পণ্ডা পরিবার৷ শুরু হয় সেলিব্রেশন৷

বাঁকুড়া জেলা স্কুলের কৃতি ছাত্র সৌগত এবার রাজ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষায় নবম স্থান অধিকার করেছে। তার প্রাপ্ত নম্বর ৬৮২। এই কৃতি জানিয়েছে, “যখন ইচ্ছে হত, তখনই পড়তাম। তবে পরীক্ষার আগের চার মাস পুরো রুটিন ধরে পড়াশুনা করেছি।”

যে কোন খবরের প্রতি ভীষণ আগ্রহী সৌগত সেই খবর বিশ্লেষণ করতে ভালোবাসে। খেলাধুলা সেভাবে করা না হয়ে উঠলেও বিষয়টাতে আগ্রহ আছে। এছাড়াও পড়াশোনার সাথে সাথে গল্পের বই পড়তে ভালো লাগে। এই ফলাফলে সে ভীষণ খুশি। তবে বাবা, মায়ের পাশাপাশি জেলা স্কুলের শিক্ষক ও গৃহশিক্ষকদের ভূমিকাকে সে কৃতজ্ঞ চিত্তে স্মরণ করেছে।

বাঁকুড়া শহরের জুনবেদিয়ার বাসিন্দা বাবা বিনয় কুমার পণ্ডা রাজ্য এগ্রিকালচার বিভাগের কর্মচারী। পণ্ডা পরিবারে খুশির হাওয়া৷ চলছে মিষ্টিমুখের পালা৷ আর সাংবাদিকদের অত্যাচার তো রয়েইছে৷ তবে আজকের দিনটা স্পেশাল৷ তাই হাসিমুখেই সব মানছে সৌগত৷