ফাইল ছবি।

কলকাতা: রাজ্যের রাজ্যপালকে নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়ের৷ বলেন,বিজেপি সভাপতিকে কিছু বললে রাজ্যপালের গায়ে লাগছে কেন?

শুক্রবার রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় ডায়মন্ড হারবারে নাড্ডার কনভয়ে হামলার ঘটনা নিয়ে সাংবাদিক বৈঠক করেন৷ তারপরই তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় ‘রাজ্যপালকে কটাক্ষের সুরে বলেন, সংবিধানের কোনও ধারা রাজ্যপালকে প্রকাশ্যে তার মতামত জানাবার অধিকার দেয় না৷ তার প্রেস কনফারেন্স করারও আমি বিরুদ্ধে৷ ওঁর কিছু বলার থাকলে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি লিখে জানাতে পারতেন৷’

সৌগতবাবু সংবাদমাধ্যমের কাছে আরও বলেন, বিজেপি সভাপতিকে বললে রাজ্যপালের এত গায়ে লাগছে কেন? উনি কি বিজেপি-র লোক? না কি বিজেপি-র প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন? পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না৷

অন্যদিকে মুখ্যসচিব, ডিজিপিকে তলব করেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার ডায়মন্ড হারবার যাত্রার সময় তাঁর কনভয়ে হামলার ব্যাপারে তাদের তলব৷ মুখ্যসচিব, ডিজিপি দিল্লি যাচ্ছেন না, এমনই ইঙ্গিত মিলছে রাজ্য প্রশাসন সূত্রে। মুখ্যসচিব কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিবকে চিঠিতে বলেছেন, গোটা বিষয়টি রাজ্য সরকার গুরুত্ব দিয়ে দেখছে।

যদিও আগেই রাজ্য় পুলিশের তরফে জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলার অভিযোগ নস্য়াৎ করা হয়েছে৷ টুইটে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের তরফে লেখা হয়েছে, ‘বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি শ্রী জে পি নাড্ডা দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ড হারবারের ভেন্যুতে নিরাপদে পৌঁছেছেন। তাঁর কনভয়ে কিছুই হয়নি। দেবীপুরে কয়েকজন পথচারী হঠাৎ তাঁর কনভয়ের পিছনে দীর্ঘ যানবাহনের দিকে পাথর ছোঁড়ে৷ প্রত্যেকে নিরাপদ এবং পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ। প্রকৃত ঘটনা জানতে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।