কলকাতা: দীর্ঘ ২ মাস পর উড়বে বিমান। লকাউনের শুরুতেই বিমান পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছিল। অবশেষে ২৫ মে থেকে বিমান চালানোর কথা জানানো হয়েছে। আর তার আগে বিমানবন্দরগুলিকে বিশেষ নির্দেশিকা পাঠানো হল, যাতে বিমানবন্দরে কী করতে হবে, না হবে তা জানানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিমানবন্দরগুলির জন্য স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রোসিডিওর বা এসওপি জারি করেছে এয়ারপোর্ট অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (এএআই)। এই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, যাত্রীদের কী নিয়ম পালন করতে হবে।

এই নির্দেশিকা অনুযায়ী, সমস্ত যাত্রীদের ২ ঘন্টার আগে বিমানবন্দরে পৌঁছতে হবে। বিমানবন্দরে স্ক্রিনিংয়ের পরই যাত্রীদের ভেতরে ঢুকতে দেওয়া হবে। ১৪ বছরের বেশি বয়সের সমস্ত যাত্রীদের তাঁদের ফোনে আরোগ্য সেতু অ্যাপ রেজিস্টার করতে হবে। আরোগ্য সেতুতে সবুজ সঙ্কেত না থাকলে বিমানবন্দরে প্রবেশের অনুমতি পাওয়া যাবে না। যাত্রীদের নিজস্ব গাড়ি বা ড়ার ট্যাক্সি পরিষেবা ব্যবহার করতে হবে। যাত্রীদের যতদূর সম্ভব ট্রলির ব্যবহার কম করতে হবে। লাইন ছাড়াই বোর্ডিং পাস মিলবে।

এছাড়াও রয়েছে আরও কিছু নির্দেশিকা এবং তা অনুসারে, যাওয়া ও আসার ক্ষেত্রে ভিন্নভিন্ন নিয়ম পালন করতে হবে।

সমস্ত যাত্রীদের মাস্ক ও গ্লাভস পরতে হবে। যে সমস্ত যাত্রীদের বিমানের উড়ান চার ঘন্টা বাকি, তাঁদের বিমানবন্দর টার্মিনাল বিল্ডিংয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। এর থেকে বেশি সময় পরে বিমানের উড়ান থাকলে সংশ্লিষ্ট যাত্রীদের বিমানবন্দর বিল্ডিংয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না।

বিমানবন্দর অপারেটরদের যাত্রীদের ব্যাগেজ টার্মিনালে প্রবেশ করতে দেওয়ার আগে পুরোপুরি স্যানিটাইজ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।ভিড় এড়াতে টার্মিনালের সমস্ত গেট খোলা রাখার কথা বলা হয়েছে যাতে যাত্রীরা টার্মিনালের ভেতরে গিয়ে সমস্ত সুরক্ষা সংক্রান্ত নিয়ম পালন করতে পারেন।

এয়ারপোর্ট অপারেটরদের সমস্ত প্রবেশ পথ ও দরজায় স্ক্রিনিং জোনগুলিতে সামাজিক দূরত্ব সূচক মার্কিং করতে হবে, যেগুলির মধ্যে দূরত্ব এক মিটারের কম হওয়া চলবে না। সমস্ত যাত্রীর জুতো জীবাণুমুক্ত করে তবেই ঢুকতে হবে।

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প