নয়াদিল্লি: শীঘ্রই বদলে যাবে ভারতের পাসপোর্টের চেহারা। সাধারণ কাগজের পাসপোর্টের বদলে এবার দেওয়া হবে চিপ লাগানো ই-পাসপোর্ট। মঙ্গলবার এমনটাই ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

জানা গিয়েছে, সেন্ট্রালাইজড পাসপোর্ট সিস্টেম প্রকল্পের আওতায় এই নয়া পাসপোর্ট তৈরির প্রস্তুতি শুরু হয়েছে ইতিমধ্যেই।

এদিন প্রধানমন্ত্রী জানান, ভিসা দানের পদ্ধতিকে আরও সরল করার কাজও শুরু হয়েছে। পার্সন অফ ইন্ডিয়ান অরিজিন ও ওভারসিজ সিটিজেন অফ ইন্ডিয়া, এই ২ ধরণের ভিসার ক্ষেত্রেই সরলীকরণ হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী জানান, তাঁদের লক্ষ্য হল ভারতীয়রা বিশ্বের যে প্রান্তেই থাকুন তাঁরা যেন খুশি থাকেন, সুরক্ষিত থাকেন।

বারাণসীতে প্রবাসী ভারতীয়দের এক অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মোদীর কথায়, পাসপোর্ট সেবা প্রজেক্টের মাধ্যমে দেশের সর্বত্র ভারতীয় দূতাবাস ছড়িয়ে রয়েছে। পাসপোর্ট সংক্রান্ত বিষয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে থাকা ভারতীয় নাগরিকদের কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন একই পরিষেবা দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পাসপোর্ট সার্ভিসে কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণাধীন একটি পদ্ধতি আনার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এক পা এগিয়ে চিপবেসড ই-পাসপোর্ট করার কথা ভাবা হচ্ছে।’

জানা গিয়েছে, এরপর দূতাবাসগুলোর মাধ্যমে নতুন পদ্ধতি রূপায়ণের চেষ্টা করবে ভারত।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।