নয়াদিল্লি: এক বছর হয়ে গেল এখনও স্থায়ী দলনেতা নির্বাচন করতে পারেনি কংগ্রেস। উল্টে এবার অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী হিসেবেই সোনিয়া গান্ধীর মেয়াদ বাড়ানো হল। পরবর্তী দলনেতা ঠিক না হওয়া পর্যন্ত তাঁকেই কাজ চালিয়ে যেতে আবেদন করেছে কংগ্রেসের কার্যকরী সমিতি। এমনকী সোনিয়া গান্ধীকেই পরবর্তী দলনেতা নির্বাচনের দায়িত্ব দিয়েছে দল।

অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি হিসেবে সোনিয়া গান্ধীর কাজের মেয়াদ ১০ অগস্ট এক বছর পার করেছে। কংগ্রেসের নিয়ম অনুযায়ী এক বছরের বেশি কেউ দলের অন্তর্বর্তীকালীন সভাপতি কাজ করতে পারেন না। তবে সোনিয়া গান্ধীর ক্ষেত্রে এই নিয়ম শেষ পর্যন্ত মানা গেল না।

গত এক বছরে কাউকেই দলের সভাপতি পদে বাছতে পারল না কংগ্রেস নেতৃত্ব। উলটে সোনিয়া গান্ধীকেই দলের পরবর্তী সভাপতি বাছতে বিশেষ দায়িত্ব দিয়েছে দলের কার্যকরী সমিতি। ২০২০-এর ১০ আগস্ট কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী হিসেবে সোনিয়া গান্ধীর এক বছর মেয়াদ সম্পূর্ণ হয়েছে।

২০১৯-এর লোকসভা ভোটে বিজেপির কাছে ধরাশায়ী হওয়ার পরে দলের সভাপতির পদ ছাড়েন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। রাহুলকে বুঝিয়েও সভাপতির পদে তাঁকে রাখা যায়নি।

পরবর্তী সময়ে দলের হাল ধরেন সোনিয়া গান্ধী। অন্তর্বর্তীকালীন সভনেত্রী হিসেবে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। কংগ্রেসের একটা বড় অংশই রাহুলকে ফের সভাপতির পদে দেখতে চাইছেন। এমনকী দলের শীর্ষ নেতৃত্ব বারংবার এবিষয়ে বৈঠক করেছে।

রাহুলকে দলের হাল ধরতে বারবার অনুরোধ করেছেন কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারাও। দলের বর্ষীয়ান নেতাদের আবেদনেও ফের সভাপতির পদ নিতে রাজি নন রাহুল গান্ধী।

দলের একজন সক্রিয় সদস্য হিসেবেই কাজ চালিয়ে যেতে চান তিনি। ঘনিষ্ঠ মহলে বারবার সেকথাই বলেছেন রাহুল। দলের সব গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিলেও সভাপতি হিসেবে এখনই দায়িত্ব নিতে নারাজ রাহুল।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা