মস্কো: যে কোন ধনকুবের থেকে এক গরীব মা-বাবা প্রত্যেকেই তার সন্তানদের অত্যন্ত ভাল ভাবে শৌখিনতার সঙ্গে মানুষ করে থাকেন। নিজের জীবনের কষ্ট যাতে তাঁর সন্তানের জীবনে না আসে সেদিকে খেয়াল রাখেন। কিন্তু রাশিয়ার অন্যতম ধনকুবের মিখাইল ফ্রিদম্যানের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা অন্যরকম। আর সেই কারণেই তিনি এলেন খবরের শিরোনামে।

জানা গিয়েছে, মিখাইল ফ্রিদম্যান যিনি কিনা রাশিয়ার এগারোতম ধনকুবের তার সন্তান অ্যালেকজান্ডার ফ্রিদম্যান থাকেন দু কামরার ঘরে। যার ভাড়া ভারতীয় মুদ্রায় মাত্র ৩৫,৬৪৩ টাকা।

ব্লুমবার্গ বিলিওনেয়ারস ইনডেক্সের রিপোর্ট অনুসারে মিখাইলের সম্পত্তির পরিমাণ ৯ হাজার ৭৬৬ কোটিরও বেশি। আর তার ছেলের এই সাধারণ জীবনযাপনের অবাক সকলে।

যদিও মিখাইল ফ্রিদম্যান-এর পুত্র অ্যালেকজান্ডার জানিয়েছেন তিনি নিজে যা রোজগার করেন তাই দিয়ে নিজের জীবন চালিয়ে যথেষ্ট খুশি রয়েছেন। গত বছর তিনি লন্ডন হাই স্কুল থেকে পড়াশোনা শেষ করেন বলেও জানিয়েছেন। পড়াশোনা শেষ করার পরেই তিনি তার ডিস্ট্রিবিউশনের ব্যবসা শুরু করেন। আর তার থেকে যথেষ্ট মুনাফাও অর্জন করেন।

পরবর্তীকালে আরও একটি ব্যবসা তিনি মস্কোতে শুরু করেন। ইতিমধ্যে তিনি তার তিন নম্বর ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রস্তুত হয়ে রয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।

যদিও তিনি তার বাবার থেকে কোনও সাহায্য তিনি নেন নি। নিজের চেষ্টাতে তিনি তার কোম্পানি চালু করেছেন। আর তার এই কোম্পানি একাধিক জিনিসপত্র তার বাবার কোম্পানিতে দিয়ে থাকে। পাশাপাশি অন্যান্য কোম্পানিতেও দেয়।

বাকিদের মত গতানুগতিক পথে না চলে নিজের পথ নিজে তৈরি করার জন্য অ্যালেকজান্ডার যে অনেকের কাছেই অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।