পটনা: প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানিয়েছে আত্মঘাতী হয়েছেন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। কিন্তু সুশান্তের অনুরাগীরা তা মেনে নিতে মোটেই রাজি নন। অনেকের দাবি আত্মঘাতী হলেও এর পিছনে রয়েছে অন্য কোনও রহস্য। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে নেটিজেনরা নানারকম সম্ভাব্য কারণের কথা তুলে ধরছেন। কেউ বলছেন বলিউডে স্বজনপোষণের জন্যই অবসাদে চলে গিয়েছিলেন সুশান্ত সিং রাজপুত।

আবার কেউ বলছেন অভিনেতার মৃত্যুর পিছনে রয়েছেন মহেশ ভাটের যোগ। আবার অভিযোগ উঠছে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পিছনে অন্যতম কারণ হলেন সুরজ পাঞ্চোলি এবং সলমন খান। কিন্তু এর কোনটা যে সত্যি তা এখনো জানা যায়নি। পুলিশ তদন্ত করছে এবং অনেককেই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। কিন্তু এরই মধ্যে একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট নতুন করে এই ঘটনায় রহস্য তৈরি করেছে।

সুশান্তের বাবা অর্থাৎ কে কে সিং এর নামে তৈরি এই টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে নানা রকমের পোস্ট করা হচ্ছে। সেই পোস্টগুলির অধিকাংশের নিশানাতেই রয়েছেন সলমন খান। সলমনকে আক্রমণ করে নানা রকমের পোস্ট করা হচ্ছে সেই অ্যাকাউন্ট থেকে। এছাড়াও পরিচালক প্রযোজক করণ জোহর এর নামেও নানারকম পোস্ট করা হচ্ছে সেই অ্যাকাউন্ট থেকে। কিন্তু অদ্ভুত বিষয় হলো এই অ্যাকাউন্টটি আসলে কে কে সিং-এর নয়।

সুশান্তের পরিবার থেকে দাবি করা হয়েছে, এই অ্যাকাউন্ট মোটেই কে কে সিং খোলেননি। কেউ তাঁর নাম ব্যবহার করে একটি ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলেছে। আর এই তথ্য সামনে আসতেই ঘটনার মোড় অন্যদিকে ঘুরেছে। প্রশ্ন উঠছে কে এই অ্যাকাউন্টটি তৈরি করেছে? তার উদ্দেশ্য কী?

সুশান্তের পরিবার জানিয়েছে, কে কে সিং প্রযুক্তিগতভাবে মোটেই দক্ষ নন। ফলত তাঁর পক্ষে টুইটার অ্যাকাউন্ট খুলে এই ধরনের পোস্ট করা মোটেই সম্ভব নয়।

অতএব এই কাজ অন্য কেউ করেছে। তারা জানিয়েছেন সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে নানা রকম জল্পনা তৈরি হলেও তারা ২৭ জুনের পরে আর এই ঘটনা নিয়ে মুখ খোলেননি জনসমক্ষে। আর তাই প্রশ্ন উঠছে কে তাহলে এই ভুয়ো অ্যাকাউন্ট তৈরি করল সুশান্তের বাবার নাম ব্যবহার করে? তাহলে কি সত্যি আরও কোন রহস্য লুকিয়ে রয়েছে এই ঘটনার পিছনে? নতুন করে জল্পনা তৈরি হয়েছে নেটিজেনদের মধ্যে।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।