স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: দিদি অনেকদিন আগেই পকেট কাটার ট্রেনিং দিয়েছেন, এখন চুল কাটার ট্রেনিং নিতে বলছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এভাবেই কটাক্ষ করলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। বৃহস্পতিবার মন্দিরতলার জনসভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেকার যুবক-যুবতীদের বলেন, বাংলায় ৩০০ আইটিআই করেছি, পলেটেকনিক করেছি৷পলেটেকনিক কলেজে ট্রেনিং দিয়ে আমরা চাকরি করে দিই৷

পড়ুন আরও- চুল কাটার ট্রেনিং নিন, বেকারদের পরামর্শ মমতার

আপনারা সেখানে ট্রেনিং নিন৷ কেউ গাড়ি চালাতে চান, গাড়ি চালানোর ট্রেনিং নিন, ধান কাটতে চান, ধান কাটার ট্রেনিং নিন, চুল কাটতে চান, চুল কাটার ট্রেনিং নিন৷ মনে রাখবেন কোনও কাজ খারাপ নয়৷ সোমেন মিত্র বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে চেয়ারে বসেন সেটার যোগ্য উনি নন। আসলে ওনার বোধশক্তি নেই।তাই এধরনের কথা বলেন।

কর্মসংস্থান নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর এই দাওয়াই শুনে ফের বিস্মিত বিরোধীরা৷তাদের বক্তব্য, রাজ্যে কর্মসংস্থান এবং বৃহৎ শিল্পের অভাব নিয়ে যখনই সরকারকে বেঁধা হয়েছে, তখনই মমতা ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের জয়গানে মনোনিবেশ করেছেন। কখনও হস্তশিল্প, কখনও মৃৎশিল্প, কখনও কাঁথাশিল্প, কখনও তেলেভাজা শিল্পের প্রসারে উৎসাহ দেওয়ার কথা বলেছেন। কোনও চাকরি দিতে না পেরে শেষপর্যন্ত এবার চুল কাটার ট্রেনিং নিতে বলছেন৷