মহালয়াতে আমরা দেখতে পাই মহিষাসুরকে দমন করতে রুদ্র মূর্তি ধারণ করেছিলেন দেবী দুর্গা। উগ্র মূর্তি ধরে মা কালী হয়ে উদ্যত হয়েছিলেন অসুর বধে। তাই কালী পূজার আরাধনায় কোনও ত্রুটি রাখা একেবারেই বাঞ্ছনীয় নয়। আসুন একনজরে দেখে নিন, আজকের দিনে কোন কাজগুলি ভুলেও করবেন না।

১.প্রথমেই মাথায় রাখুন, পুজোর ঘরে জুতো ঢোকানো যাবে না। কালীপুজোর রাতে খেয়াল রাখুন ভুল করেও যেন কেউ পুজোর ঘরে জুতো পরে না ঢোকে। এছাড়া পুজোর ঘরের আশেপাশেও যেন জুতো না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

২. অনেকেই প্রতিদিন টাটকা ফুল দিয়ে পুজো করতে পারেন না। তাই আগের দিন ফুল কিনে এনে পরের দিন সেই ফুল দিয়ে পুজো করেন।তবে কালী পুজোর দিন এটা করা চলবে না। টাটকা ফুল দিয়ে পুজো করতে হবে। বাসি ফুল দিয়ে পুজো করা যাবে না।

৩. জুতো যেমন পুজোর ঘরে ঢোকাবেন না, তেমনই মাথায় রাখুন, পুজোর ঘরে চামড়ার ব্যাগ বা চামড়া দিয়ে তৈরি কোনো জিনিস ঢোকানো যাবে না।এতে পুজোর ঘর অপবিত্র হয়ে গেছে বলে মনে করা হয়।

৪. কোনো মূর্তি ভেঙে গেলে তা কখনই জোড়া দিয়ে পুজো করা উচিত না।মূর্তি ভেঙে গেলে সঙ্গে সঙ্গেই নতুন মূর্তি স্থাপন করা উচিত।এছাড়া যদি কেউ বাড়িতে শিবলিঙ্গ বসানোর পরিকল্পনা করেন তাহলে তা যেন বুড়ো আঙুলের চেয়ে বড় না হয়।

৫. মনে রাখুন, পূর্বপুরুষের ছবি ঠাকুরঘরে রাখা বাস্তু মতে একেবারেই ঠিক না।এতে জীবনে অশান্তির কালো মেঘ ঘনিয়ে আসে।

হিন্দু ধর্ম মতে, কালীপুজোর দিন অত্যন্ত পবিত্র। তাই শুদ্ধ মন ও চিন্তায় দেবীর আরাধনায় বসা উচিত। নইলে হিতে বিপরীত হতে কতক্ষণ ?

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও