মেলবোর্ন: সেমিফাইনালের লাইন-আপ নির্ধারিত হওয়ার পরেই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল যে, ওমেনস সিঙ্গলসে নতুন চ্যাম্পিয়ন পেতে চলেছে মেলবোর্ন পার্ক৷ কেননা, যে চার জন তারকা শেষ চারের টিকিট নিশ্চিত করেছিলেন তাঁদের মধ্যে একমাত্র সিমোনা হালেপ ২০১৮ সালে একবার ফাইনালে উঠেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের৷ বাকি তিন জন কখনও কোয়ার্টার ফাইনালের বাধা টপকাননি৷ অর্থাৎ চতুর্থ বাছাই সামিনো হালেপ ছাড়া বাকি তিন জন প্রথম বার টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে ওঠেন৷

আরও পড়ুন: ফেডেরারকে ছিটকে দিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ফাইনালে জোকার

শীর্ষ বাছাই অ্যাশলে বার্টি ও সিমোনা হালেপ নিজ নিজ অর্ধে দু’টি সেমিফাইনালে ফেভারিট ছিলেন৷ যদিও দুই তারকাকেই ছিটকে যেত হয় সেমিফাইনাল থেকে৷ বিশ্বের এক নম্বর তারাক বার্টিকে শেষ চারের লড়াইয়ে পরাজিত করেন ১৪তম বাছাই মার্কিন তারকা সোফিয়া কেনিন৷হালেপ সেমিফাইনালে হেরে যান জোড়া গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী গার্বাইন মুগুরুজার কাছে৷

আরও পড়ুন: অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে চিরতরে শেষ হল লিয়েন্ডার অধ্যায়

সোফিয়া ৭-৬ (৮/৬), ৭-৫ স্ট্রেট সেটে পরাজিত করেন বার্টিকে৷ এর আগে কখনও মেজর টুর্নামেন্টের কোয়ার্টারে উঠতে না পারা সোফিয়ার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করতে সময় লাগে মাত্র ১ ঘণ্টা ৪৫ মিনিট৷ তিন বারের প্রচেষ্টায় অজি ওপেনের খেতাবি লড়াইয়ে জায়গা করে নেন তিনি৷ এর আগে ২০১৮ সালে প্রথম রাউন্ড এবং ২০১৯ সালে দ্বিতীয় রাউন্ড থেকে বিদায় নিয়েছিলেন তিনি৷

আরও পড়ুন: থিয়েমের কাছে হার, অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে যাত্রা শেষ নাদালের

অপর সেমিফাইনালে মুগুরুজা ৭-৬ (১০/৮), ৭-৫ সেটে হারিয়ে দেন হালেপকে৷ স্প্যািস তারকাকে ম্যাচ জিততে লড়াই চালাতে হয় ২ ঘণ্টা ৫ মিনিট৷ ফাইনালে গার্বাইন মুখোমুখি হবেন সোফিয়ার৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।