নয়াদিল্লি : ফেসবুক, টুইটার এবং হোয়াটসঅ্যাপের মতো জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া কোম্পানি ভোটের ৪৮ ঘন্টা আগেই নিজেদের প্ল্যাটফর্মে যো কোনও ধরনের নির্বাচনী প্রচার অভিযান বন্ধ করে দেবে৷ এই বিষয়ে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের পক্ষ থেকে তৈরি করা ভলেন্টারি কোড অফ এথিক্সে জানানো হয়েছে৷

সোশ্যাল মিডিয়ার এই কোম্পানিগুলি বুধবার ভলেন্টারি কোড অফ এথিক্সে ভারতীয় নির্বাচন কমিশনে জমা করেছে৷ এই প্রথম ইন্টারনেটের কম্পানির অনলাইন অভিযান কে মান্যতা দেওয়া হল৷

জানা গিয়েছে মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশন ইন্টারনেট এবং মোবাইল এসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া এবং সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মের প্রতিনিধিদের নিয়ে বৈঠক করে৷ এই বৈঠকে ভলেন্টারি কোড অফ এথিক্সে তৈরি করা হয়৷

ফেসবুক, টুইটার , হোয়াটসঅ্যাপের মতো কম্পানির পাশাপাশি বিগো এবং বাইটডান্স কম্পানিও ভলেন্টারি কোড অফ এথিক্সে সই করে৷ নির্বাচন কমিশন জানায় এই কোড তৈরি করা একটা ইতিবাচক পদক্ষেপ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।