দুশানবে: তাজিকিস্তানের রাজধানী শহর দুশানবের আবহাওয়া সঙ্গে কৃত্রিম টার্ফে খেলার অনভিজ্ঞতা। বৃহস্পতিবারের ম্যাচে সুনীলদের বিপক্ষে বলার মত একাধিক বিষয় ছিল বটে। কিন্তু ফিফা র‍্যাংকিংয়ে ৪৩ ধাপ পিছিয়ে থাকা একটা দলের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত সময়ের গোলে হার বাঁচানো মোটেই মেনে নিতে পারছেন না দেশের ফুটবল ভক্তরা। অনেকটা পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশের বিরুদ্ধে গত ম্যাচে যুবভারতীর প্রবল জনসমর্থনের সামনেও একইভাবে মানরক্ষা হয়েছিল আদিল খানের শেষমুহূর্তের গোলে। আর এদিন আন্তর্জাতিক সার্কিটে প্রথম গোল করে হার বাঁচালেন সেইমিনলেন ডোংগেল।

ম্যাচ শেষে স্বাভাবিকভাবেই সুনীলদের পারফরম্যান্স এবং সর্বোপরি ইগর স্টিম্যাচের স্ট্র্যাটেজি নেটিজেনদের আতস কাঁচের নীচে। চার ম্যাচ খেলা হয়ে গেলেও ঝুলিতে একটিও জয় নেই। টানা তিন ম্যাচ ড্রয়ে আপাতত লিগ টেবিলে চতুর্থস্থানে থেকে পরবর্তী রাউন্ড থেকে ক্রমশ পিছু হটছে ব্লু-টাইগাররা। তাই দুশানবেতে হিমাঙ্কের কাছাকাছি আবহাওয়াতেও সুনীলদের পজিটিভ কিছু মুভমেন্ট কিংবা দ্বিতীয়ার্ধ জুড়ে পজেশন নিজেদের দখলে রেখে ম্যাচে সমতা ফেরানোয় খুশি হতে পারছেন না দেশের ফুটবল অনুরাগীরা।

প্রথমার্ধ জুড়ে এদিন ১৪৬ নম্বর দলের বিরুদ্ধে ইতিবাচক কোনও সুযোগ তৈরি করতে ব্যর্থ হন সুনীল-উদান্তারা। উলটে সুযোগ পেলেই ভারতীয় রক্ষণে হানা দিতে থাকে আফগানরা। ফল মিলে যায় হাতে-নাতে। প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময় ডেভিড নাজেমের পাস থেকে আফগানিস্তানকে এগিয়ে দেন জেলফাগার নাজারি। দ্বিতীয়ার্ধে তিনটি পরিবর্তন এনে আক্রমণাত্মক ফুটবল উপহার দিলেও গোল আসছিল না কিছুতেই। অবশেষে ৯৩ মিনিটে ব্র্যান্ডনের কর্নার থেকে দুরন্ত হেডারে কোনক্রমে দলের হার বাঁচান এফসি গোয়া স্ট্রাইকার সেইমিনলেন। উল্লেখ্য, স্টিম্যাচের প্রশিক্ষণে এই সেটপিসই সাম্প্রতিক সময়ে ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়েছে ভারতীয় দলের জন্য।

স্বাভাবিকভাবেই ম্যাচ শেষের পর প্রতাশাপূরণে ব্যর্থ ভারতীয় দলকে ঘিরে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে। কেউ লিখেছেন, ‘সূচী প্রকাশের পর বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচ থেকে অন্তত ৪ পয়েন্ট প্রত্যাশিত ছিল। কিন্তু ২ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ভারতীয় দল বাস্তবের মাটিতে নামিয়ে আনল।’ আবার কেউ লিখেছেন, দ্বিতীয়ার্ধের দুরন্ত ফুটবল কিংবা লেনের গোলের পরেও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করতে পারছি না। টানা দ্বিতীয় ম্যাচ, যেখানে আমাদের জেতার কথা ছিল কিন্তু আমরা ড্র করে ফিরছি।’

তবে সারা ম্যাচ জুড়ে এফসি গোয়া মিডফিল্ডার ব্র্যান্ডন ফার্নান্ডেজের পারফরম্যান্সের প্রশংসা করেন নেটিজেনরা। দূরপাল্লার শট, পাশাপাশি সেটপিস বিশেষজ্ঞ ব্র্যান্ডনের দাপুটে ফুটবল বৃহস্পতির দুশানবেতে ভারতীয় দলে সবচেয়ে উজ্জ্বল। তাঁরই কর্নার থেকে ক্লাব ফুটবলে সতীর্থ লেনের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে পয়লা নম্বর গোলেরও প্রশংসা করেন নেটিজেনরা। সবকিছু মেনে নিয়ে আগামী ১৯ নভেম্বর মাসকাটে ওমানের বিরুদ্ধে ফের সুনীলদের তিন পয়েন্টের আশায় বুক বাঁধছেন তারা।