নয়াদিল্লি: করোনা পরবর্তী সময় এত গাইডলাইন মেনে ক্রিকেটারদের বাইশ গজে প্রত্যাবর্তন খুব একটা সহজ হবে না। একইসঙ্গে লকডাউন পরবর্তী সময় সমস্তরকম সতর্কতা গ্রহণ করে তবেই ক্রিকেট চালু করার পক্ষে সায় দিলেন দেশের প্রাক্তন অধিনায়ক মহমদ আজহারউদ্দিন।

দীর্ঘদিন ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা দর্শকরা অধীর আগ্রহে মুখিয়ে রয়েছেন লাইভ ক্রিকেট দেখার অপেক্ষায়। আগামী মাসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইংল্যান্ড সফর দিয়ে করোনা পরবর্তী সময় চালু হবে ক্রিকেট। পরবর্তীতে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে অক্টোবরে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে টি-২০ ক্রিকেট বিশ্বকাপ। যদিও বিশ্বকাপ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পরের মাস অবধি স্থগিত রেখেছে আইসিসি। এরইমধ্যে সেপ্টেম্বর-অক্টোবর উইন্ডোয় নতুন করে আইপিএল আয়োজন করার কথা চিন্তাভাবনা করছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

এমতাবস্থায় আজহার বলছেন, ‘আমাদের ৩-৪ নির্দিষ্ট ভেন্যু বেছে নিতে হবে। কারণ একটি ভেন্যুতে সব ম্যাচ আয়োজন করা কঠিন এবং অসম্ভব।’ একইসঙ্গে ‘সালাম ক্রিকেট ২০২০’ অনুষ্ঠানে লালার ব্যবহার প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে আজ্জু জানান, ‘এটা বোলারদের জন্য খুব কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। এখনও যদি মাঠে আমার বল ধরার সুযোগ হয় তাহলে আমি লালা দিয়ে বলটা প্রথমে পালিশ করে তবে অন্যের হাতে দেব। এত গাইডলাইনকে সঙ্গী করে ক্রিকেটের ফেরাটা খুব একটা সহজ হবে না।’ একইসঙ্গে প্রাক্তন অধিনায়কের মতে ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজের সিরিজের পর কোনটা ঠিক কোনটাই বা ভুল, এবিষয়ে আমাদের ধারণা স্পষ্ট হবে।

আইসিসি নির্দেশিত গাইডলাইন মেনে বাইশ গজে ফেরার বিষয়টা কতোটা কঠিন হবে ক্রিকেটারদের জন্য। এ প্রসঙ্গে আন্তির্জাতিক ক্রিকেটে ১৫,৫৯৩ রানের মালিক জানিয়েছেন, ‘এটা পুরোটাই নির্ভর করছে ক্রিকেটারদের উপর। ওরা ভীষণ ঝুঁকি নিয়ে মাঠে নামতে চলেছে। ক্রিকেটে মধ্যে দিয়ে একে অপরের সংস্পর্শে থাকার সম্ভাবনা ব্যাপক। কারণ একটাই বল মাঠে প্রত্যেক প্লেয়ারের কাছে পৌঁছে যায়, এমনকি গ্যালারিতে ফ্যানেরাও সেটাকে স্পর্শ করে। তাই আমার মনে হয় বোর্ডের উচিৎ যত শীঘ্র সম্ভব আলোচনায় বসে বিষয়টি সমাধান করা। সবধরনের আগাম সতর্কতা গ্রহণ করে তবেই ক্রিকেট ফেরানো উচিৎ। কারণ প্রত্যেকের স্বাস্থ্যের বিষয়টি সবার আগে বিচার্য।’

ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট সিরিজ খেলতে চলতি সপ্তাহের শুরুতেই পৌঁছে গিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর ম্যাঞ্চেস্টারে আপাতত তিন সপ্তাহের কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে গোটা দল। বায়ো-সিকিওর পরিবেশেই অনুষ্ঠিত হবে গোটা সিরিজ এবং তাঁর প্রক্রিয়া। তাই স্বাস্থ্য পরীক্ষা করিয়ে আপাতত নিভৃতবাসে হোল্ডার অ্যান্ড কোম্পানি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ