স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : এই গরমে ঠাণ্ডার আমেজ পেতে চান? চলে যান রাজারহাটে। সেখানে এখন তুষারপাত হচ্ছে। অ্যাক্সিস মলে এসে লিফটে করে চড়ে যান একেবারে উপরের তলায়৷ তাহলেই বাইরের গরম থেকে সোজা এসে হাজির হবেন তুষারকুন্ডে।

৮ থেকে ৮০ সবাই নিতে পারেন বরফের মজা। নিউ টাউনের অ্যাক্সিস মলের একদম শেষ তলায় প্রায় ৯ হাজার বর্গফুট এলাকা জুড়ে তৈরি হওয়া শহরের প্রথম স্নো পার্কের মজাটাই আলাদা। যেদিকে তাকাবেন সেখানে শুধুই বরফ। কখনও উঠছে তুষারঝড়, কখনও হচ্ছে তুষারপাত। পার্কের সিনিয়র ম্যানেজার মানস বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বাইরের তাপমাত্রা যতটা বেশি এখানে ততটাই কম। এখানে তাপমাত্রা -৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।” তাহলে একবার ভাবুন।

প্রত্যেকদিন ১১ টা থেকে ৮ টা পর্যন্ত খোলা থাকে এই পার্ক। প্রত্যেক একঘন্টা অন্তর বিশেষ প্রদর্শন থাকে এই পার্কে। তা দেখার জন্যে নাম মাত্র খরচ করতে হবে আপনাকে। কি কি দেখতে পারবেন এখানে? এমন তাপমাত্রা তাই এই পার্কে ঢুকতে প্রথমে আপনাকে দেওয়া হবে বিশেষ পোশাক এবং জুতো। তাছাড়া প্রথমে ঢুকেই আপনি তুষারঝড় কিংবা তুষারপাত পাবেন না। তা পেতে আরও গভীরে যেতে হবে। পুরো বিষয়টির জন্যে খরচ করতে হবে মাত্র ৪৯৯ টাকা।

মাঘের শীতে ১০-এ গেলেই কেঁপে যান। -৩০ ডিগ্রি হলে কি অবস্থা হবে। পার্কের ভিতরে তৈরি করা হয়েছে, গুহা, ইগলু পাইন গাছ, বরফে ঢাকা পাহাড় সব কিছুই। শুধু তাই নয়, রয়েছে বরফে ফুটবল খেলার ছোট মাঠ। রয়েছে স্নো স্লাইডিং এবং কলকাতার একমাত্র লেজার আইস ডিস্কো।

মানসবাবু বলেন, “অনেকেই প্রচন্ড গরম থেকে বাঁচতে পাহাড়ে কোথাও বেড়াতে যেতে চান। কিন্তু এখনকার অফিসের কাজের বহরে হয়ে ওঠে না।” মনস্কাকমনা পূর্ণ করতে মহানগরের স্নো পার্ক।