ভোপাল: ভয়ঙ্কর কাণ্ড মধ্যপ্রদেশের পান্নায়। সেখানে বরাত জোরে বাঁচলেন এসপি মায়াঙ্ক অবস্তী। তবে কোনও দুষ্কৃতি না, সাপের হাত থেকে কোনও রকমে রক্ষা পেলেন এসপি। মায়াঙ্ক অবস্তী-র জুতোর মধ্যে ঢুকে লুকিয়ে ছিল এক বিষধর সাপ। জুতো থেকে মোজা বের করতে গিয়ে হাতে ঠাণ্ডা কিছু টের পেয়েই আঁতকে ওঠেন এসপি।

বিষ ঢালার আগেই নিজের হাত সরিয়ে নেন এসপি। তবুও সতর্কতা হিসেবে পান্না জেলা হাসপাতালে প্রাথমিক পরীক্ষার পরে জবলপুরে নেওয়া হয় তাঁকে। সেখানে চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে আছেন তিনি। তবে এখন তিনি পুরোপুরি সুস্থ আছেন বলে জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, নিজের বাংলো থেকে বেরিয়ে অফিসের দিকে যাবেন বলে জুতো পড়তে গিয়েছিলেন তিনি। যখনই তিনি জুতো থেকে মোজা বের করতে যান, টের পান জুতোর ভেতরে কিছু একটা রয়েছে।

আরও পড়ুন – গভীরভাবে তন্দ্রাচ্ছন্ন’ প্রণব মুখোপাধ্যায়, এখনও আছেন ভেন্টিলেটর সাপোর্টে: আর্মি হাসপাতাল

দ্রুত তিনি হাত সরিয়ে নেন এবং ভালো করে পরীক্ষার পর দেখতে পান একটি বিষাক্ত সাপ ঢুকে রয়েছে জুতোর মধ্যে। এরপরেই আর দ্বিরুক্তি না করে সোজা জেলা হাসপাতালে পৌঁছন এসপি ও চিকিৎসককে সব খুলে জানান।

তবে হাসপাতালে পুরো চেকআপ করা হলেও শরীরে কোনও সাপের কামড়ের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তবে আঙ্গুল সামান্য ফোলা থাকায় আশঙ্কা করা হচ্ছিল সাপের কামড়ের। সে কারণে তাঁকে জবলপুরের হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে তাঁর চিকিত্সা করা হচ্ছে, এই মুহুর্তে তিনি পুরোপুরি সুস্থ আছেন বলে জানা গিয়েছে।

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা