লখনউ : আমেঠি জয়ের পরেই দু:সংবাদ আসে বিজেপি শিবিরে৷ জয়ী বিজেপি প্রার্থী স্মৃতি ইরানির প্রচারসঙ্গীকে খুন করা হয়৷ শনিবার রাতে খুন করা হয় আমেঠির বারাউলিয়া গ্রামের প্রাক্তন প্রধান সুরেন্দ্র সিংকে। গুলি করা হত্যা করা হয় তাঁকে। আমেঠির বারাউলিয়া গ্রামের প্রধান ছিলেন সুরেন্দ্র৷ গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যায় ৫০ বছরের সুরেন্দ্র৷

নিহত সুরেন্দ্র স্মৃতি ইরানীর ঘনিষ্ঠ ছিলেন বলেই জানা যায়। স্মৃতি ইরানীর জয়ের পিছনে বড় ভূমিকা পালন করেছিলেন তিনি। আমেঠিতে স্মৃতির প্রচারে থাকতেন সুরেন্দ্র সিং।

আরও পড়ুন : রাজনীতি ছেড়ে প্রতিশ্রুতি পূরণ করুক শুভেন্দু, দাবি অধীর ঘনিষ্ঠদের

এই খুনের পিছনে রয়েছে কংগ্রেসের হাত৷ এমনই অভিযোগ করেছিলেন স্মৃতি৷ তাঁর মতে পরাজয়ের বদলা নিতেই সুরেন্দ্রকে খুন করা হয়েছে৷ সোমবার ফের সেই অভিযোগ উসকে সরব হলেন স্মৃতি ইরানি৷ তিনি বলেন আমেঠি জয়ের পর একটি বার্তা আসে পরাজিত কংগ্রেস প্রার্থী রাহুল গান্ধীর কাছ থেকে৷ এই বার্তায় লেখা ছিল, ভালবাসা দিয়ে আমেঠির খেয়াল যেন রাখেন স্মৃতি৷

এখানেই স্মৃতির অভিযোগ, রাহুলের বার্তা এসেছে সুরেন্দ্রের খুনের ঠিক পরেই৷ তাই এই বার্তার অর্থ তাঁর কাছে ও তাঁর দলের কাছে খুব পরিষ্কার৷ স্মৃতির দাবি সুরেন্দ্রের খুনের পিছনে যে কংগ্রেসই রয়েছে, তা আরও একবার প্রমাণিত, রাহুলের বার্তাতেই সেই ইঙ্গিত রয়েছে৷ এই বক্তব্যের অন্তর্নিহিত অর্থ জলের মত সোজা বলে দাবি স্মৃতির৷ তাই রাহুল গান্ধীর এই বার্তাকে সামনে রেখে স্থানীয় বিজেপি কর্মীদের তিনি বলেন, সতর্ক থাকতে৷ কারণ তাঁর আশংকা এলাকায় পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে পারে কংগ্রেস সমর্থকরা৷

তবে স্মৃতির বিশ্বাস কেন্দ্রের মোদী সরকার ও রাজ্যের যোগী সরকার এই খুনের সঠিক বিচার করবে৷ এদিকে, ১২ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতার করতে হবে খুনীদের, নির্দেশ জারি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ তাঁর নির্দেশ যেভাবেই হোক ১২ ঘণ্টার মধ্যে খুনীদের পুলিশের জালে তুলতে হবে৷ অন্যথা আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ গোটা ঘটনার তদন্তের জন্য লখনউয়ের আইজিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে৷

আরও পড়ুন : নাশকতার ছক বানচাল, কাশ্মীরে উদ্ধার শক্তিশালী আইইডি

রবিবার নিজের বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, স্মৃতি ইরানির প্রচারসঙ্গী ও আমেঠির বারাউউলিয়া গ্রামের প্রাক্তন প্রধান সুরেন্দ্র সিংকে খুনের ঘটনা রীতিমত দুর্ভাগ্যজনক৷ মুখ্যমন্ত্রীর দফতর থেকে জানানো হয়, আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে দোষীদের গ্রেফতারের নিদান দিয়েছেন আদিত্যনাথ৷

উত্তরপ্রদেশের ডিজিপি ওপি সিং জানিয়ে ছিলেন, ইতিমধ্যেই এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ৭ জনকে আটক করা হয়েছে৷ এলাকায় যাতে কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি না ছড়িয়ে পড়ে সেজন্য ৩ কোম্পানি প্রাদেশিক সশস্ত্র পুলিশ বাহিনী রাখা হয়েছে৷ খুব দ্রুত এই ঘটনার ফয়সলা পুলিশ করে ফেলতে পারবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন ডিজিপি৷ মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ মত ১২ ঘণ্টার মধ্যেই এই খুনের কিনারা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন তিনি৷