পুরুলিয়া: বুধবার ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিন৷ তিনি ৬৯ বছরে পা দিলেন৷ এই উপলক্ষে গোটা দেশেই নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন বিজেপির নেতারা৷ আর এই প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মুখ ফোসকে বলে ফেলেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদি অমর রহে৷’’ অবশ্য মঞ্চে থeকা দলীয় নেতারা সতর্ক করায় তিনি বলেন ‘‘নরেন্দ্র মোদি যুগ যুগ জিও৷’’

পুরুলিয়ার একটি সভায় বক্তৃতা দিতে গিয়ে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ যা করলেন, তাতে অস্বস্তিতে পড়েন জেলার নেতারা৷ সেখানে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন বলতে গিয়ে মুখ ফোসকে তিনি স্লোগান দিলেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদি অমর রহে৷’’ পরে এই বিষয়ে সাফাইও দিতে রাজ্য বিজেপি সভাপতি বলেছেন, ‘‘আমার যুগ যুগ জিও বলা উচিত ছিল৷ কিন্তু আমি ভুল করে অমর রহে বলে ফেলেছি৷’’

এদিকে তখন রাজ্য বিজেপি সভাপতির মুখ থেকে এমন স্লোগান শুনে অস্বস্তিতে নড়েচড়ে বসেন মঞ্চে উপস্থিত দলের নেতারা৷ মঞ্চে তখন ছিলেন পুরুলিয়ার বিজেপি সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী , পুরুলিয়ার বিজেপি সাংসদ জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো এবং জেলা বিজেপির দুই সাধারণ সম্পাদক বিবেক রাঙ্গা ও কমলাকান্ত হাঁসদা৷ দিলীপ ঘোষকে সতর্ক করতে তাঁরা বক্তৃতারত দিলীপ ঘোষকে হাত ধরে টেনে ধরে ভুল ধরিয়ে দেন বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী ও জ্যোতির্ময় সিং মাহাতো৷ তাদের কথা শুনে নিজের ভুল বুঝতে পেরে শুধরে নিয়ে দিলীপ ঘোষ সুর পালটে বলতে থাকেন, ‘‘নরেন্দ্র মোদি যুগ যুগ জিও৷’’

তার আগে মঙ্গলবার প্রথমে পুরুলিয়ার জয়পুরে চা-চক্রে যোগ দেন দিলীপ ঘোষ৷ সেখানে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন৷ এরপর সেখান তিনি জেলা নেতৃত্বের সঙ্গে একটি মিছিলও করেন৷ কিন্তু সেই মিছিলে হাঁটার সময় দিলীপ ঘোষের নিরাপত্তারক্ষীরা জেলা বিজেপি সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তীকে ধাক্কা দেয়৷ যা নিয়ে সেখানে মৃদু বচসা হয়৷ এমনকি পরে সরকারি কটেজে দিলীপ ঘোষ বিশ্রাম নিতে গেলে, সেখানেও তাঁর সামনেই নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বাদানুবাদে জড়িয়ে পড়েন ৷ যার ফলে কিছুটা অস্বস্তিতে পড়েন রাজ্য বিজেপি সভাপতি৷ যদিও পরে বিদ্যাসাগর বাবু পরিস্থিতি হালকা করতে জানান, ওনারা তো আমাদের না চেনায় একটু ধাক্কা দিয়ে ফেলেছেন৷