গোটা বিশ্বে করোনা অতিমারীর পরে বদলে গিয়েছে মানুষের জীবনযাত্রা। নতুন ভাবে আবার সকলকে শুরু করতে হচ্ছে নিজেদের জীবনছন্দ। বদলে গিয়েছে কর্ম পদ্ধতিও। একাধিক কোম্পানির তরফে ক্রেতাদের জন্য জারি করা হয়েছে ওয়ার্ক ফ্রম হোম। আর এই নতুন পদ্ধতির সঙ্গে নিজেদের মানিয়ে চলতে হচ্ছে কর্মীদের। এই ওয়ার্ক ফ্রম হোমের ক্ষেত্রে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে উঠেছে কাজের পরিস্থিতি।

 

যে কোন কাজের ক্ষেত্রেই পরিবেশ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। সেই বিষয়টি মাথাতে রেখেই এবারে অ্যামাজনের তরফে ক্রেতাদের জন্য নিয়ে আসা হয়েছে sleepx work from home office table। এই টেবিলে কাজের ল্যাপটপ বা কম্পিউটার ছাড়াও প্রয়োজনীয় যে কোন ধরনের জিনিস বা কাগজ রাখতে পারবেন। টেবিলের উপরে জায়গা অনেকটা বেশি হওয়ার ফলে নিজের সুবিধা অনুসারে কাজ করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। তার সঙ্গে টেবিলের উপরিভাগেও কাপ বা অন্যান্য জিনিস রাখতে পারবেন। সঠিক ভাবে বাড়ির ভেতরে কাজের পরিস্থিতি তৈরি করার ক্ষেত্রে যথেষ্ট সুবিধাদায়ক হবে এই টেবিল। ই কমার্স জায়েন্ট অ্যামাজন থেকে বেশিরভাগ মানুষেরা ছাড়ের সুবিধার জন্য জিনিস পত্র কিনে থাকেন। আর সেই কারণেই এই টেবিলের উপরেও রাখা হয়েছে আকর্ষণীয় ছাড়ের সুবিধা।

 

এই টেবিলের উপরে ৪৬ শতাংশ ছাড়ের সুবিধা দেওয়া হয়েছে। ছাড় দেওয়ার জন্য এই টেবিল কিনতে ক্রেতাদের খরচ হবে মাত্র ৩৪৯৯ টাকা। এর ফলে ক্রেতারা বাঁচাতে পারবেন ৩ হাজার টাকা। এছাড়া ক্রেতাদের আকর্ষণ বৃদ্ধির জন্য রয়েছে সহজ emi এর সুবিধা। মাত্র ১৪৬ টাকা emi তে এই টেবিল কিনতে পারবেন অনেকেই।

তবে অ্যামাজন পে থেকে এই টেবিল কিনলে ক্রেতারা পাবেন অতিরিক্ত ক্যাশব্যাকের সুবিধাও। সম্পূর্ণ কাঠের তৈরি এই টেবিলে বেশ কয়েকটি শেলফ রাখা হয়েছে। যার ফলে অফিসের কাজ সংক্রান্ত যে কোন ধরনের জিনিস সেখানে রাখতে পারবেন মানুষজন। কাঠের তৈরি হলেও ওজনে হালকা হওয়ায় সহজেই যে কোন জায়গাতেই এই টেবিল রাখা যাবে। পাশপাশি তা সরিয়ে নিয়ে যেতে কোন অসুবিধা হবে না। এর ফলে বাড়ি বসে অফিসের কাজ করার ক্ষেত্রে কোন সমস্যা হবে না সাধারণ মানুষের।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।