স্টাফ রিপোর্টার, বর্ধমান: কাজ চেয়ে কাটোয়া পুরসভার পুরপ্রধান তথা তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়ের উপর হামলার চেষ্টা করে ছয় জন মহিলা৷ অভিযুক্ত ছয় মহিলাকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছে কাটোয়া পুরসভার কর্মীরা।

কাটোয়া থানার পুলিশ আটক মহিলাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। কাটোয়া পুরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার দুপুর ১টা নাগাদ যখন পুরপ্রধান রবীন্দ্রনাথ বাবু পুরসভায় তাঁর চেম্বারে এসে ঢোকেন সেই সময় দুই জন মহিলা তাঁর কাছে গিয়ে কাজ চান। এরপরই সেখানে পরপর আরও চার মহিলা ঢুকে পড়েন। তাঁরা বিধায়কের হাত-পা ধরে টানাটানি করতে থাকেন। বিধায়কের নিরাপত্তারক্ষীরা ছুটে আসেন। ছুটে আসেন পুরসভার কর্মীরাও। তাঁরা মহিলাদের আটকে রেখে পুলিশে খবর দিলে কাটোয়া থানার পুলিশ এসে ওই ছয় মহিলাকে আটক করেন।

ধৃত মহিলারা হিন্দি ও বাংলা উভয় ভাষাতেই কথা বলছিলেন বলে জানা গিয়েছে। এদিকে এই ঘটনায় রবীন্দ্রনাথ বাবু জানিয়েছেন, প্রায় আট মাস আগেই পুলিশ জানিয়েছিল শিলিগুড়ি থেকে একটি মহিলাদের দল তাঁর ওপরে হামলা চালাতে পারে বলে আগাম সতর্ক বার্তা দিয়েছিল। তারপর থেকেই তাঁর ব্যক্তিগত নিরাপত্তারক্ষী ছাড়াও তিনি যখন পুরসভায় থাকেন সেই সময় তাঁর কাটোয়া থানার পুলিশ মোতায়েন থাকে পুরসভায়। থাকেন মহিলা পুলিশও।

এদিনের এই ঘটনার পর কাটোয়ার পুরপ্রধান তথা বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, মহিলারা কেন এরকম কাণ্ড ঘটাল বুঝতে পারছি না। মহিলাদের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগণার নৈহাটির গৌরীপুর। যদিও প্রথমে মহিলারা নিজেদের বাড়ি সঠিক বলছিল না। বিধায়কের দাবি শিলিগুড়ি থেকে আসা ছয় জনের একটি দল তাঁর উপর হামলা করতে পারে বলে আগেই জানিয়েছিল। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখছে কাটোয়া থানার পুলিশ।