শিলিগুড়ি: বাংলার মাটিতে গ্রেফতার ছয় রোহিঙ্গা। যাদের মধ্যে রয়েছে এক মহিলা।

উত্তরবঙ্গের নেপাল সীমান্ত থেকে ছয় রোহিঙ্গাকে গ্রেফতার করেছে সশস্ত্র সীমা বল। জানা গিয়েছে ধৃত সকলেই মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশের বাসিন্দা ছিল। দেশ ছেড়ে ভারত এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় বসবাস করেছে।

ধৃত ছয় রোহিঙ্গা শিলিগুড়ি হয়ে নেপালে পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল বলে জানিয়েছে সশস্ত্র সীমা বল। ভারত থেকে নেপাল যাওয়ার বিধিনিষেধ কম থাকলেও সর্বদা কড়া নজরদারি চালায় জওয়ানেরা। সীমান্ত এলাকায় ছয় ব্যক্তির গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হওয়ায় ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তখনই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে।

রোহিঙ্গা পরিচয় নিশ্চিত হতেই তাদের গ্রেফতার করা হয়। ধৃতদের নাম সাইদুল হক, জুবের আহমেদ, মহম্মদ ইদ্রিশ, রিয়াজ়, আলি আহমেদ এবং জাউ ইয়ারা। ধৃত সকলের কাছ থেকেই রোহিঙ্গা শরণার্থী কার্ড উদ্ধার করা হয়েছে। জেরায় জানা গিয়েছে এই দলের প্রধান সাইদুল। সেই বাকিদের কাজের লোভ দেখিয়ে নেপালে নিয়ে যাচ্ছিল।

ধৃত সকলকেই খড়িবাড়ি থানার পুলিশের হাতে তুলে সশস্ত্র সীমা বল। পরে তাদের শিলিগুড়ি মহকুমা আদালতে তোলা হয়। সাইদুল সহ চার জনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক, বাকি দুই জনের জেল হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

গত প্রায় আড়াই বছর ধরে ভারতীয় উপমহাদেশের বিস্তীর্ণ অংশে চলছে রোহিঙ্গা সমস্যা। যার বড় প্রভাব পরেছে বাংলাদেশে। ভারতেও বসবাস করতে শুরু করেছে মায়ানমার থেকে পালিয়ে আসা বহু রোহিঙ্গা। পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জায়গায় রোহিঙ্গাদের আস্তানা থাকলেও অবৈধ রোহিঙ্গা গ্রেফতারের সংখ্যা এই রাজ্যে অনেক কম। এর আগে উত্তর ২৪ পরগনার হাবরা থেকে বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল।