সিমলা: পুলওয়ামায় ৪০ শহিদের শোকে এখনও আচ্ছন্ন গোটা দেশ। এনকাউন্টারে শহিদ হয়েছেন আরও পাঁচ জওয়ান। এবার হিমালচল প্রদেশ। ভয়ঙ্কর বরফ ধসে একাধিক জওয়ানের মৃত্যুর আশঙ্কা।

বুধবার হিমালচল প্রদেশের কিন্নরের ভারত-চিন সীমান্তের কাছে ভয়াবহ বরফ ধসের কবলে পড়ে সেনাবাহিনী। জেকে রাইফেলস ইউনিটের একাধিক জওয়ানের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত একজনের দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছেল বাকি পাঁচজন নিখোঁজ।

কিন্নরের ডেপুটি কমিশনার গোপাল চাঁদ জানিয়েছেন, এখনও পর্যন্ত পাঁচজনের খোঁজে তল্লাশি চলছে। সকাল ১১ টা নাগাদ ধস নামে কিন্নরের শিপকালার কাছে। আইটিবিপির একাধিক জওয়ান সেই ধসে আটকে পড়ে। পরে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, সেনাবাহিনী ও আইটিবিপি-র দুটি দল প্যাট্রলিং করছিল। সেই সময় এই ঘটনা ঘটে। হিমাচল প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জয় রাম ঠাকুর জানিয়েছেন, এখনও পাঁচ জওয়ানের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তিনি আশ্বাস দিয়েছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার জন্য রাজ্য সরকার সবরকম সাহায্য করবে। কিন্নরের কমিশনারকে পরিস্থিতির উর নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ঘটনার খবর পেয়েই কিন্নরে ছুটে যায় জেলার প্রশাসনিক প্রতিনিধিরা। ঘটনাস্থলে উদ্ধারের কাজ করছেন অন্তত ১৫০ জওয়ান।

গত জানুয়ারিতেই এরকমই একই ধসের কবলে পড়ে সেনাবাহিনী। ভোররাতে কাশ্মীরের পুঞ্চ সেক্টরে সেনাবাহিনীর পোস্টের ওপরে আছড়ে পড়ে তুষার ধস। ওই ধসে মৃত্যু হয় এক জওয়ানের।

ভোর চারটে নাগাদ নিয়ন্ত্রণ রেখায় রাষ্ট্রীয় রাইফেলসের সাওজিয়ান পোস্ট ঢাকা পড়ে যায় তুষার ধসে। দুর্ঘটনার পরই উদ্ধারকার্য নামে সেনা। চাপা পড়ে যাওয়া তাঁবু থেকে বের করে আনা হয় আটকেপড়ে জওয়ানদের।