মুম্বই: অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্ত করছে সিবিআই। তবে এরই মধ্যে গ্রেফতারির ভয়ে বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হলেন প্রয়াত অভিনেতার দুই দিদি প্রিয়ঙ্কা সিং ও মিতু সিং। প্রিয়ঙ্কা ও মিতু দুজনেই সুশান্তের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। কিন্তু এবার রিয়াও তাঁদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেছেন।

অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর দাবি, দিল্লির হাসপাতাল থেকে বেআইনি ভাবে চিকিৎসকের থেকে প্রেসক্রিপশনে মানসিক রোগের ওষুধের নাম লিখিয়ে এনেছিলেন প্রিয়ঙ্কা। এই ওষুধ খাওয়ার এক সপ্তাহ পরেই মৃত্যু হয় সুশান্তের। হোয়াটসঅ্যাপে এই ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ সুশান্তকে দিয়েছিলেন রিয়া। সেই স্ক্রিনশটও শেয়ার করেছেন রিয়া।

যদিও প্রিয়ঙ্কা ও মিতু সিং এর আইনজীবী মাধব থোরাট জানিয়েছেন, বেআইনি ভাবে ওষুধ দেওয়া হয়নি। মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়ার গাইডলাইন অনুযায়ী এই ওষুধ মোটেই নিষিদ্ধ নয়। প্রিয়ঙ্কা চিকিৎসকের সঙ্গে ফোনে কথা বলেই সুশান্তকে এই ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন বলে তাঁর দাবি। রিয়ার আইনজীবী সতীশ মানশিন্দে বলছেন, প্রয়াত অভিনেতাকে ওষুধের পরামর্শ দিয়েছিলেন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ তরুণ কুমার। তিনি দিল্লি থেকে কী ভাবে সুশান্তকে না দেখে মানসিক রোগের ওষুধ দিলেন!

গ্রেফতারির ভয়ে তাই বম্বে হাইকোর্টের দারস্থ হয়ে দ্রুত শুনানির আবেদন জানিয়ে পিটিশন দাখিল করেছেন প্রিয়ঙ্কা ও মিতু। আগামী ৪ নভেম্বর শুনানি হবে বলে জানা যাচ্ছে।

জেলবন্দি তথাকথিত অপরাধীদের আলোর জগতে ফিরিয়ে এনে নজির স্থাপন করেছেন। মুখোমুখি নৃত্যশিল্পী অলোকানন্দা রায়।