হায়দরাবাদ: করোনা তহবিলে অনুদানের তালিকায় নয়া সংযোজন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শাটলার পুসারলা ভেঙ্কট সিন্ধু। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে করোনা তহবিলে বৃহস্পতিবার ১০ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহয্যের কথা ঘোষণা করেন সিন্ধু।

মারণ ভাইরাসে এদেশে আক্রান্তের সংখ্যা ইতিমধ্যেই ৬০০-র গন্ডি পেরিয়েছে। মৃতের সংখ্যা ১৫। করোনার ভয়াবহতা উপলব্ধি করে গোটা দেশ লকডাউন আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। এমন সময় হাত গুটিয়ে আর বসে থাকতে পারলেন না রিও অলিম্পিকে রুপোজয়ী শাটলার। তেলেঙ্গানা ও হায়দরাবাদ দুই রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে ৫ লক্ষ টাকা করে অনুদান করলেন হায়দরাবাদি শাটলার।

মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে সিন্ধু এদিন লেখেন, ‘তেলেঙ্গানা ও হায়দরাবাদে মুখ্যমন্ত্রীর করোনা তহবিলে আমি ৫ লক্ষ টাকা করে অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করলাম।’ মারণ ভাইরাস করোনা পৃথিবীজুড়ে খেলার মাঠ স্তব্ধ করলেও সংকটের মুহূর্তে কিন্তু এককাট্টা হয়ে লড়াইয়ের বার্তা দিয়ে যাচ্ছেন সমস্ত অ্যাথলিটরা। সামর্থ্য অনুযায়ী অ্যাথলিটরা দেশের জন্য রাজ্যের জন্য দান করে চলেছেন করোনা তহবিলে।

গতকালই করোনা মোকাবিলায় বড় অঙ্কের অর্থসাহায্যের কথা ঘোষণা করেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো, লিওনেল মেসিরা। স্পেন এবং আর্জেন্তিনার হাসপাতালগুলোতে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কেনার জন্য অর্থসাহায্যের কথা ঘোষণা করেছেন মেসি। রোনাল্ডো ও তাঁর এজেন্ট জর্জ মেন্ডেজ পর্তুগালের রাজধানী শহর লিসবন ও পোর্তোর দুটি হাসপাতালে প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম কেনার জন্য বড় অঙ্কের অর্থসাহায্যের কথা ঘোষণা করেছেন।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গের দিকে নজর ঘোরালে দেখা যাবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের রিলিফ ফান্ডে ২৫ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ বেঙ্গল। গরিব ফুটপাথবাসীদের মুখে অন্ন তুলে দিতে ৫০ লক্ষ টাকা আর্থিক অনুদানের কথা ঘোষণা করেছেন বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।