নয়াদিল্লি : কোয়ারেন্টাইনে ভারতীয় ওপেনার শিখর ধাওয়ান। সম্প্রতি জার্মানি থেকে ভারতে ফিরেছেন ধাওয়ান। সরকারের নির্দেশে তিনি চলে গিয়েছেন কোয়ারেন্টাইনে। সোশ্যাল সাইটে একটা ভিডিও পোস্ট করে ধাওয়ান নিজেই জানান কোয়ারেন্টাইনে থাকার অভিজ্ঞতাও।

ভিডিওতে তিনি বলেছেন, ‘শহর থেকে ৭০ কিলোমিটার দূরে সবাইকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। পুরো বিল্ডিং জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে। দিল্লি পুলিশ, মন্ত্রী-সবাই এখানে আছেন এবং নিজেদের কাজ এবং দায়িত্ব সবাই পালন করছেন।’ ভিডিওতে ধাওয়ান আরও বলেছেন, করোনাসংক্রমণের এই অবস্থায় দেশে ফেরা নিয়ে ভয়ে ছিলেন। কিন্তু দেশে এসে দেখেছেন সরকারি ব্যবস্থাপনায় কোয়ারেন্টিনের অবস্থা বেশ সন্তোষজনক। একইসঙ্গে তিন বলেছেন, ‘সবাইকে আলাদা ঘর দেওয়া হয়েছে। খাওয়ার পানি, সুস্বাদু খাবার, নতুন স্যান্ডেল, মশা তাড়ানোর ওষুধ দেওয়া হয়েছে। অন্যান্য সব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাই আছে। সরকার সব ব্যবস্থাই করেছে।’

মঙ্গলবার ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার অ্যালেক্স হেলসও করোনা আক্রান্ত সন্দেহে নিজেই আইসোলেশনে চলে যান। তবে এখনও পরীক্ষা হয়নি ইংরেজ ওপেনারের। ইংল্যান্ড ক্রিকেটার বলেন, ‘ধারণা ও গুজব ক্রিকেটবিশ্বে সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে৷ কিন্তু আমার মতো অনেক বিদেশি ক্রিকেটার, বিশ্বজুড়ে মহামারির আকার নিয়েছে COVID-19 এই কথা ভেবে বিদেশে আইসোলেশনে থাকার থেকে ঘরে আইসোলেসনে থাকা অনেক ভালো বলে মনে করেছে। তাই আমি দেশে ফেরার সিদ্ধান্ত নিই। এবং পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে চলে আসি।’

একইসঙ্গে পিএসএল চলাকালীন তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ ছিলেন বলেও দাবি করেন ডানহাতি মারকুটে ওপেনিং ব্যাটসম্যান। তাঁর শরীরে করোনা ভাইরাসের কোনও উপসর্গ দেখা যায়নি বলেও জানান তিনি। প্রাক্তন এই ইংল্যান্ড ওপেনার বলেন, ‘আমি শনিবার সকালে সম্পূর্ণ সুস্থভাবে দেশে ফিরি৷ রবিবার সকাল থেকে জ্বর অনুভব করি৷ সরকারের ঘোষণা মত আমি নিজে আইসোলেশনে থাকার সিদ্ধান্ত নিই৷’