নয়াদিল্লি: আন্তর্জাতিক চাপের কাছে নতিস্বীকার। শান্তির বার্তা দিয়ে শুক্রবার ভারতে ফেরানো হবে উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে। বৃহস্পতিবার সেদেশের সংসদে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান। এরপরই পাক প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ দেশ-বিদেশের নানা মহল।

বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের সংসদে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ‘পরিস্থিতি কখনওই হাতের বাইরে যাওয়া কাম্য নয়। নইলে তার ফল ভুগতে হবে পাকিস্তানকেই।’ এরপরই পাক প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেন, আগামীকালই পাকিস্তানের হাতে বন্দী ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনকে মুক্তি দেওয়া হবে। অভিনন্দনকে মুক্তির ঘোষণার পর থেকেই পাক প্রধানমন্ত্রী তথা প্রাক্তন ক্রিকেটারের কাছে ভেসে আসছে অভিনন্দনের বন্যা। পিছিয়ে নেই ভারতও। অভিনন্দনকে মুক্তি দেওয়ার কথা ঘোষণার পরই পাক প্রধানমন্ত্রীকে বাহবা জানান ক্রিকেটার হরভজন সিং।

আরও পড়ুন: রিয়ালকে উড়িয়ে ফাইনালে বার্সেলোনা

নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে ভাজ্জি লেখেন, ‘ইমরান খান জানিয়েছেন, আগামিকাল মুক্তি দেওয়া হবে ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনকে। এই ঘটনা সৌভ্রাতৃত্বের পরিচয় বহন করে।’ শুধু হরভজনই নন, বন্ধু ইমরানের প্রশংসায় টুইট করেন একদা বাইশ গজে পাক প্রধানমন্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বী নভজোৎ সিং সিধু। শুধুমাত্র প্রশংসাই নয়, অভিনন্দনকে মুক্তি দেওয়া ইমরানের ‘মহান কাজ’ বলে উল্লেখ করে কংগ্রেস নেতা জানান, ‘তোমার সৌভ্রাতৃত্ব বোধ লক্ষ লক্ষ মানুষকে খুশি করেছে। গোটা দেশ আজ আনন্দিত। আমি অত্যন্ত খুশি অভিনন্দনের মা-বাবা এবং প্রিয়জনের কথা ভেবে।’

আরও পড়ুন: ম্যাক্সওয়েল ঝড়ে ঐতিহাসিক সিরিজ জয় অস্ট্রেলিয়ার

এদিকে ইমরানের ঘোষণার আগে বৃহস্পতিবার পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি বলেন, ‘যদি সংঘর্ষ বন্ধ হয় তাহলে আমরা পাইলট অভিনন্দনকে ফেরাতে রাজি।’ ভারত সরকার কোনও কনস্যুলার অ্যাকসেসও চায়নি পাকিস্তানের কাছে। ভারত স্পষ্ট বার্তা দেয় যে, পাইলটের যদি কোনও ক্ষতি হয়, তাহলে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। মনে করা হচ্ছে সেই চাপের কাছেই কার্যত নতিস্বীকার করল পাকিস্তান।