চার মাস পর খোঁজ মিলেছে কমেডিয়ান সিদ্ধার্থ সাগরের। সদ্য ইনস্টাগ্রামে ভিডিও পোস্ট করে নিজের ভক্তদের আশ্বাস দেন যে তিনি এখন নিরাপদ আশ্রয়ে আছেন।

সেই সঙ্গে জানান, তিনি মানসিক ভাবে অত্যাচারিত। এরপরই সাগরের ঘনিষ্ঠ বন্ধু সোমি সাক্সেনা আঙুল তোলেন সিদ্ধার্থের মায়ের দিকে। তাঁর দাবি, “সিদ্ধার্থ তাঁদের বলতেন, মা ও তাঁর বয়ফ্রেন্ড টায়ারে বেঁধে মারধর করেন তাঁকে। তিনি হতাশায় ভোগা শুরু করেন, ওষুধ খেতেন নিয়মিত। কোনওমতে সেখান থেকে পালিয়ে একটি হোটেলে গিয়ে ওঠেন তিনি।” সঙ্গে সোমি আরও বলেন, “সিদ্ধার্থকে তাঁর মা আগেও করেছেন।”

কমেডিয়ানের নিখোঁজ হওয়ার খবর সকলের নজড়ে আসে সোমি সাক্সেনার ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে। তবে সোমির অভিযোগ, এই পোস্ট করার পর সিদ্ধার্থের মা ও তাঁর বয়ফ্রেন্ডের তাঁকে উত্যক্ত করতে থাকে।

এমনকি সিদ্ধার্থের মা ভয় দেখান পুলিশে অভিযোগ করবেন, যে সোমি তাঁদের থেকে টাকা নেওয়ার চেষ্টা করছেন। তিনি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থায় কাজ করেন, বহু যোগাযোগ রয়েছে। শুধু তাই নয়, এক মহিলা সাব ইন্সপেক্টরও ফোন করে ওই পোস্ট মুছে ফেলতে বলেন, হুমকি দেন, না হলে তাঁর বিরুদ্ধে সিদ্ধার্থের মাকে উত্যক্ত করার অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এরপরেই ভয় পেয়ে ওই পোস্ট মুছে ফেলেন তিনি।

তবে সত্যিটা কি তা জানা যাবে সাগরের মুখ থেকে। যদিও ইনস্টাতে পোস্ট করা ভিডিতে তিনি জানান যে, তাঁকে মানসিক ভাবে অত্যাচার করা হয়েছে। সিদ্ধার্থের পরিবার তাঁর সমস্যার সৃষ্টি করে চলেছে ইদানিং৷ৱ। পরিবারের বিরুদ্ধে এনসিও করেন তিনি। দু-তিন দিনের মধ্যে মিডিয়ার সামনে এসে সবটা খোলসা করবেন।