নয়াদিল্লি: বায়ুদূষণের দিক থেকে দেখতে গেলে সব থেকে উপরে যে নামটি আসবে তা হল রাজধানী দিল্লি। দিওয়ালি পরবর্তী সময়ে দিল্লির বাতাসের পরিস্থিতি চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছিল সাধারণ মানুষের। পরিস্থিতি এতটাই জটিল হয়ে দাঁড়ায় যে, স্কুল ও বন্ধ রাখতে হয়েছিল দিল্লি সরকারকে।

তবে আর নয়, দিল্লির বাসিন্দাদের জন্য নতুন চমক ‘অক্সি পিওর’। দিল্লির সাকেতে এই অক্সিজেন বারে ঢুকলে মিলবে রেহাই। মাত্র ১৫ মিনিটের জন্য বিশুদ্ধ অক্সিজেন পেতে চাইলে যে কেউ আসতেই পারেন এই বারে। দামও পকেটসাধ্যই। ২০১৯ সালের মে মাসে আর্যবীর কুমার এই অক্সি পিওর বারের উদ্বোধন করেন। যার প্রয়োজন এই মুহূর্তে প্রায় সকল দিল্লিবাসীই অনুভব করছেন। অবাক করা বিষয় হল এই বারে সাতটি আলাদা সুবাসে মানুষজন অক্সিজেন নিতে পারবেন।

এই বারের এক কর্মী বনি ইরেংবাম জানিয়েছেন, তারা বাতাসের চাপ নিয়ন্ত্রণ করে সাধারণ মানুষকে ১৫ মিনিটের জন্য এই বিশুদ্ধ অক্সিজেন দেন। ক্রেতাদের একটি টিউবে এই বিশুদ্ধ অক্সিজেন দেওয়া হয় এবং তাঁরা এটি প্রশ্বাসের সঙ্গে গ্রহন করেন। তবে তিনি জানিয়েছেন ক্রেতারা মাত্র একবারই এই অক্সিজেন নিতে পারবেন। তাঁর বেশী নয়।

এই বিশুদ্ধ অক্সিজেন নেওয়ার নানারকম সুবিধাও রয়েছে। শুধুমাত্র শারীরিক উদ্যম বাড়ানোই নয় তাঁর সঙ্গে মন শান্ত রাখতেও যথেষ্ট উপকারী। এই বিশুদ্ধ অক্সিজেন নেওয়ার ফলে ঘুমের সমস্যা কম হয় এবং ত্বকের জেল্লাও বৃদ্ধি পায়। এছার ডিপ্রেশন কাটাতেও বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা নেয় এই বিশুদ্ধ অক্সিজেন।

মাত্র ১৫ মিনিটের জন্য ক্রেতাদের ২৯৯ টাকা খরচ করতে হবে। তবে পছন্দমত সুবাসের সঙ্গে অক্সিজেন নিতে গেলে সেক্ষেত্রে দামের তারতম্য থাকবে বলেও বনি জানিয়েছেন। এই বার দিল্লির সাকেতে রয়েছে খুব দ্রুত দ্বিতীয় বার দিল্লি বিমানবন্দরের কাছে খোলা হবে জানানো হয়েছে। তাহলে আর দেরী কেন বিশুদ্ধ অক্সিজেন নিতে আজই ঢুঁ মারুন এই বারে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও