তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: দলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের দেখানো পথেই এবার হাঁটলেন বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর (তফঃ) লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী শ্যামল সাঁতরা। এদিন তিনি প্রচারে বেরিয়ে সাধারণ মানুষের হাতে তুলে দিলেন এই মুহূর্তে অনুব্রত মণ্ডলের সৌজন্যে বহুচর্চিত ‘নকুল দানা’। শাসক দলের ‘হেভিওয়েট’ এই প্রার্থীর হাত থেকে নকুল দানা উপহার পেয়ে বেজায় খুশি ভোটাররাও।

তৃণমূল প্রার্থী শ্যামল সাঁতরা এদিন বিষ্ণুপুরের পান শিউলী, ঘুটবন, বেল শুলিয়া সহ বেশ কয়েকটি গ্রামে ঘুরে নির্বাচনী প্রচার চালান। তার ফাঁকেই তিনি নকুল দানায় ‘নতুনত্ব’ কিছু নেই বলে দাবি করেন৷ বলেন, এই গরমের মধ্যে নির্বাচনী প্রচার চলছে। মানুষকে তো শুধু জল দেওয়া যায় না। তাই কোথাও গুড়, কোথাও বাতাসা, কোথাও নকুল দানার পাশাপাশি জলের সঙ্গে চিনি পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।

অন্যদিকে বাঁকুড়া লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায় জেলার জঙ্গল মহলে প্রচার চালান। এদিন তিনি রানীবাঁধের বিধায়ক জ্যোৎস্না মাণ্ডি ও খাতড়া পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি জয়ন্ত মিত্রকে সঙ্গে নিয়ে হুড খোলা গাড়িতে কাশীপুর, সাবুবাইদ, চাকা, বেনা, সিমলা, আড়কামা গ্রামগুলিতে নির্বাচনী প্রচার সারেন।

খাতড়ার কাশীপুর গ্রামে এক নির্বাচনী সভায় তৃণমূল প্রার্থী সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘আমাদের বাংলা অনেক কিছু পেয়েছে, কিন্তু এখনও একজন প্রধানমন্ত্রী পায়নি। আমি রাজ্যের একজন মন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও আমাকে আপনাদের আশীর্বাদ নিতে এখানে পাঠিয়েছেন। আপনাদের সবার ভোটের মাধ্যমে আশীর্বাদ পেলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের প্রথম বাঙ্গালী প্রধানমন্ত্রী হওয়া সময়ের অপেক্ষা।’’

একই সঙ্গে তিনি বলেন, তাঁর দফতর সারা রাজ্যের সঙ্গে বাঁকুড়ার এই এলাকার মানুষের জন্য পানীয় জল, রাস্তা ঘাট সহ অন্যান্য পরিকাঠামোগত উন্নয়ন তৈরি করেছেন। আগামী দিনে সুযোগ পেলে আরও উন্নয়নমূলক কাজ তিনি করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন।