মুম্বই: কিছুদিন আগেই বিচ্ছেদের খবর দিয়েছেন অভিনেত্রী দিয়া মির্জা। এবার ফের আরও একটা দাম্পত্য সমস্যার খবর শিরোনামে। ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্বেতা তিওয়ারি স্বামীর বিরুদ্ধে পুলিশের দ্বারস্থ হলেন।

গত বছরই শোনা গিয়েছিল তিনি ও তাঁর বর্তমান স্বামী অভিনব আলাদা থাকছেন। যদিও সংবাদমাধ্যমে সেকথা স্বীকার করেননি শ্বেতা। বলেছিলেন, তাঁদের মধ্যে সব ঠিক আছে। খুশিই আছেন দু’জনে। ব্যাখ্যা দিয়ে জানিয়েছিলেন, কিছু সমস্যার জন্য বাবা-মা’কে ছেড়ে তাঁর সঙ্গে মুম্বইতে এসে থাকতে পারছেন না অভিনব। সবকিছু সামলেই চলে আসবেন তিনি।

তবে সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমে উঠে এসেছে অন্য খবর। Asian Age-এ প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, শ্বেতার মেয়ে পালকের সঙ্গে আচরণ নিয়ে অভিনবের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন শ্বেতা। তাঁর অভিযোগ, তাঁর প্রথম পক্ষের মেয়ে পালককে অশ্লীল ছবি দেখিয়েছেন অভিনব। করেছেন কুরুচিকর মন্তব্যও। এমনকি মেয়েকে চড় মারার অভিযোগ তুলেছেন স্বামীর বিরুদ্ধে।

শ্বেতার প্রথম পক্ষের স্বামী রাজা চৌধুরীর মেয়ে এই পালক। এখন থাকেন শ্বেতার সঙ্গেই। অভিনব ও শ্বেতার বিয়ে হয় ২০১৩-তে। ২০১৬ তে তাঁদের এক পুত্রসন্তানও হয়।

জানা গিয়েছে, মেয়ে পালক ও অভিনব কোহলির সঙ্গে থানায় গিয়েছিলেন শ্বেতা। জোরে চীৎকার করতেও কাঁদতে দেখা গিয়েছে শ্বেতাকে। চার ঘণ্টা থানায় ছিলেন অভিনব। তাঁর বিরুদ্ধে প্রত্যেকদিন মদ্যপানের অভিযোগও জানিয়েছেন শ্বেতা।

২০১৭-র অক্টোবর থেকে নাকি প্রায়ই পালককে মোবাইলে নোংরা ছবি দেখান অভিনব। যৌন হেনস্থা, উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে অপমান করার মত একাধিক ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে অভিনবর বিরুদ্ধে।